IQNA

21:43 - February 10, 2019
সংবাদ: 2607910
আন্তর্জাতিক ডেস্ক: নাইজেরিয়ার ইসলামিক আন্দোলন জানিয়েছে, সেনা বাহিনীর সদস্যরা সেদেশের শিয়া আলেম ও নেতা শেখ ইব্রাহিম জাকজাকিকে হত্যার পরিকল্পনা করেছিল।

বার্তা সংস্থা ইকনা: গত সপ্তাহে এক বিবৃতিতে এই সংগঠন উল্লেখ করেছে, নিরাপত্তা সংস্থা শেখ জাকজাকিকে হত্যার করার জন্য ষড়যন্ত্রমূলক নকশা তৈরি করেছে এবং এই হত্যার দায়ভার নাইজেরিয়ার ইসলামিক আন্দোলনের উপর আরোপ করতে চেয়েছিল।

এই বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়েছে: জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টার নিকট হতে ২৫শে জানুয়ারি একটি চিঠি প্রকাশ পেয়েছে। এই চিঠিটি নাইজেরিয়ার পুলিশ পরিদর্শন বিভাগে উদ্দেশ্যে প্রেরণ করা হয়েছে। চিঠিটিতে মিথ্যা দাবী করে উল্লেখ করা হয়েছে যে, প্রেসিডেন্ট নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ইসলামিক আন্দোলন সংগঠন সেদেশের বেশ কয়েকটি কারাগারে হামলা চালানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

বিবৃতি অনুযায়ী, এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে নাইজেরিয়ার সেনা বাহিনী ও নিরাপত্তা বাহিনী একটি ভুয়া দল প্রস্তুত করে শিয়া আলেম ও নেতা শেখ ইব্রাহিম জাকজাকিকে গুলি করে হত্যা করার পরিকল্পনা করেছে। তাকে হত্যা করার পর এই হত্যার দায়ভার ইসলামিক আন্দোলন সংগঠনে ঘাড়ে বর্তাতে চেয়েছে।

ইসলামিক আন্দোলন সংগঠন গুরুত্বারোপ করে বলেছে, আমরা শুধুমাত্র আইনি পন্থায় শেখ ইব্রাহিম জাকজাকিকে মুক্তি করার চেষ্টা করছি। এই সংগঠনের কোন সদস্যই কোন প্রকার সহিংসতার মধ্যে যাবে না।

নাইজেরিয়ার সেনাবাহিনী ২০১৫ সালের ১২ ডিসেম্বর দেশটির জারিয়া শহরে শিয়া মুসলমানদের এক সমাবেশে ভয়াবহ হামলা চালায়। ওই হামলায় শত শত মুসলমান নিহত এবং জাকজাকি গুরুতর আহত হন।

পরের দিন শেখ জাকজাকির বাড়িতে হামলা চালিয়ে তাকে এবং শীর্ষস্থানীয় বেশ কয়েক জন নেতাকে আটক করে। বর্বরোচিত এ হামলায় শতশত শিয়া মুসলমান সহকারে জাকজাকির তিন ছেলেও নিহত হয়েছেন। 

এক বছর পূর্বে নাইজেরিয়ার হাই কোর্ট শেখ জাকজাকি ও তার স্ত্রীর বেকসুর খালাসের জন্য রায় প্রদান করে। কিন্তু সেদেশের সরকার ও সেনাবাহিনী এই রায় মেনে নেয়নি। iqna

 

 

নাম:
ই-মেল:
* আপনার মন্তব্য: