IQNA

20:49 - May 12, 2019
সংবাদ: 2608526
আন্তর্জাতিক ডেস্ক: শ্রীলংকার পুলিশ সৌদি আরবে লেখাপড়া করা এক স্কলারকে আটক করেছে এবং বলা হচ্ছে আটক ব্যক্তির সঙ্গে সাম্প্রতিক গির্জায় হামলার মূল পরিকল্পনাকারী জাহরান হাশিমের ঘনিষ্ঠ যোগাযোগ রয়েছে।

বার্তা সংস্থা ইকনা: মুহাম্মাদ অলিয়ার নামে ৬০ বছর বয়সী এ ব্যক্তির আটকের মধ্যদিয়ে শ্রীলংকার মুসলমানদের মধ্যে ওয়াহাবি ও সালাফি মতবাদের মারাত্মক প্রসারের বিষয়টি সামনে চলে এসেছে।

অলিয়ার হচ্ছে সেন্টার ফর ইসলামিক গাইডেন্সের প্রতিষ্ঠাতা। এ কেন্দ্রের আওতায় শ্রীলংকার কাট্টানকুডি শহরে একটি মসজিদ, মাদ্রাসা ও একটি লাইব্রেরি গড়ে তুলেছে। কাট্টানকুডি হচ্ছে জাহরানের জন্মশহর। বার্তা সংস্থা রয়টার্সের বরাত দিয়ে পাকিস্তানের ইংরেজি দৈনিক এক্সপ্রেস ট্রিবিউন এ খবর দিয়েছে।

গত শুক্রবার শ্রীলংকার পুলিশ এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, “সন্দেহভাজন অলিয়ারের সঙ্গে জাহরানের ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক রয়েছে বলে তথ্য পাওয়া গেছে। তাদের মধ্যে আর্থিক লেনদেনের তথ্যও মিলেছে। সম্প্রতি গির্জা ও হোটেলে আত্মঘাতী হামলাকারীদের প্রশিক্ষণ প্রদানের ব্যাপারে আলিয়ারের ভূমিকা রয়েছে।”

বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে, ইস্টার সানডেতে যেসব ব্যক্তি আত্মঘাতী হামলায় অংশ নিয়েছে তাদেরকে দক্ষিণাঞ্চলীয় হাম্বানটোটা শহরে প্রশিক্ষণ দেয়ার কাজে অলিয়ার জড়িত ছিলো। ইস্টার সানডের হামলায় অন্তত ২৫০ ব্যক্তি নিহত হয়।

আলিয়ার ১৯৮৯ সালে সৌদি আরবের রিয়াদ শহরে ইমাম মুহাম্মাদ বিন সৌদ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক ডিগ্রি অর্জন করেছে। এর এক বছর পর আলিয়ার শ্রীলংকা পূর্বাঞ্চলীয় কাট্টানকুডি শহরে ইসলামিক গাইডেন্স সেন্টার প্রতিষ্ঠা করেন। স্থানীয়রা জানিয়েছে, এই শহরে সালাফি ও ওয়াহাবী সন্ত্রাসীদের ঘাটি রয়েছে।

স্থানীয়রা আরও বলেছে, এই প্রতিষ্ঠানটি সৌদি আরব ও কুয়েতের নাগরিকদের সাহায্যে পরিচালিত হয়। iqna

শ্রীলঙ্কায় বিস্ফোরণে সৌদি আরবে শিক্ষিত স্কলারের ভূমিকা

 

নাম:
ই-মেল:
* আপনার মন্তব্য: