IQNA

0:43 - August 11, 2019
সংবাদ: 2609067
আন্তর্জাতিক ডেস্ক: প্রতি বছরই কাবা শরিফের গিলাফ পরিবর্তন করা হয়। এদিন গোলাপজল দিয়ে কাবাঘরকে ধুয়ে পরিস্কার করা হয় এবং স্বর্ণখচিত নতুন গিলাফ দিয়ে কাবাঘরের চার দেয়াল আচ্ছাদিত করা হয়। আর এটি পবিত্র হজের দিন ফজরের পর বদলানো হয়। সে ধারাবাহিকতায় আজ সকালে পরিবর্তন করা হয় পবিত্র কাবা শরিফের গিলাফ।

বার্তা সংস্থা ইকনা'র রিপোর্ট: হজের দিন হজ পালনকারী আরাফাতের ময়দানে অবস্থানের কারণে মসজিদে হারাম তথা কাবা চত্ত্বরে মানুষের উপস্থিতিও থাকে একেবারেই কম। আর তাতে কাবা শরিফে নতুন গিলাফ পরাতেও সুবিধা হয়। হজ পালন শেষে হাজিরা তাওয়াফ করতে এসে দেখতে পান উজ্জ্বল চকচকে গিলাফ।

কাবা শরিফকে আবৃত করতে মোট ৫ টুকরা কিসওয়া বা গিলাফ বানানো হয়। দরজার ওপরে কারুকার্যখচিত গিলাফটি ছাড়া কাবা শরিফের ৪ দিকে চারটি গিলাফ পরানো হয়। প্রতিটি গিলাফ একটির সঙ্গে অপরটি সেলাই করা।

কাবার গিলাফ তৈরি করতে প্রয়োজন হয় ৬৭০ কেজি রেশম। ১৫০ কেজি সোনা ও রূপার চিকন তার। ১ মিটার লম্বা ও ৯৫ সেন্টিমিটার চওড়ার ৪৭ থান সিল্কের কাপড় দিয়ে তৈরি করা এ গিলাফ। গিলাফের মোট আয়তন ৬৫৮ কেজি।

উল্লেখ্য যে, প্রতি বছরই সতর্কতাবশতঃ ২সেট গিলাফ তৈরি করা হয়। যাতে একটি নষ্ট হয়ে গেলে অন্যটি পরানো যায়। একটি হাতে তৈরি করা হয় আর অন্যটি (সতর্কতাবশতঃ) মেশিনে তৈরি করা হয়। হাতে কাবা শরিফের গিলাফটি তৈরিতে সময় লাগে প্রায় ৮/৯ মাস। অন্যটি মেশিনে তৈরি করতে সময় ব্যয় হয় এক মাস।   iqna

কাবা শরিফে পরানো হলো সোনা-রূপার তৈরির নতুন গিলাফ

 

নাম:
ই-মেল:
* আপনার মন্তব্য: