IQNA

0:01 - October 24, 2020
সংবাদ: 2611686
তেহরান (ইকনা): কুরআনিক রেডিওর প্রতি মিশরীয়দের ব্যাপক সমর্থনের কারণে সেদেশের তরুণ কৌতুক অভিনেতা ক্ষমা চাইতে বাধ্য হয়েছে।

মিশরের তরুণ কৌতুক অভিনেতা মোহাম্মদ আশরাফ সোমবার (১৯ অক্টোবর) আরব দেশগুলোয় বিশেষ স্থানের অধিকারী মিশরীয় কুরআনিক রেডিওর বক্তাদের উপহাস করে একটি ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করেছে।

এই ভিডিও প্রকাশের পরে, সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহারকারীরা #وذاعة_القرآن_الکریم এবং #ادعم_إذاعة_القرآن_الکریم (কুরআনিক রেডিওকে সমর্থন করুন) হ্যাশট্যাগ তৈরি করে এবং কৌতুক অভিনেতার উপহাসের নিন্দা জানিয়ে তাই এই পদক্ষেপের তীব্র সমালোচনা করেছেন।

মিশরের সাংবাদিক তামের আমিন মঙ্গলবার টেলিভিশনের এক অনুষ্ঠানে বলেন: কুরআনিক রেডিওকে অপমান করার জন্য মোহাম্মদ আশরাফের ক্ষমা চাওয়া উচিত।

মিশরীয় জাতীয় মিডিয়া বোর্ড এক বিবৃতিতে গুরুত্বারোপ করে বলেছে: এই ব্যক্তির দুঃসাহস এবং অহংকারের জন্য তাকে শাস্তি প্রদান করা উচিত।

এই বিবৃতিতে বলা হয়েছে: মিশরীয় শ্রোতা এবং আরব বিশ্বের অন্যান্য শ্রোতাদের হৃদয়ে কুরআনিক রেডিওর বিশেষ স্থান রয়েছে। সুতরাং, এই ব্যক্তিকে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব তার কর্মের জন্য শাস্তি পেতে হবে।

পবিত্র কুরআনের সংস্কৃতি প্রচারে মিশরীয় কুরআন রেডিওর ভূমিকার প্রশংসা করে মিশরীয় এনডোমেন্টস মন্ত্রণালয় এবং দার আল-ইফতাও দুটি পৃথক বিবৃতিতে এই অবমাননাকর ভিডিও প্রকাশের নিন্দা করেছে।

এই বিষয়টি বিভিন্ন গণমাধ্যমে ব্যাপকভাবে সমালোচিত হওয়ার পর ২১শে অক্টোবর বুধবার স্থানীয় এক গণমাধ্যমে মোহাম্মদ আশরাফ বলেছে যে, তিনি কেবল বক্তাদের কণ্ঠস্বর অনুকরণ করেছে এবং এর মাধ্যমে তাদের ঠাট্টা-বিদ্রূপ করার ইচ্ছা পোষণ করেনি।

মোহাম্মদ আশরাফ বলেছে: এই ভিডিওর মাধ্যমে যাদের অপমান করেছি, তাদের সকলের নিকট ক্ষমা চাচ্ছি।

মিশরীয় কৌতুক অভিনেতা আরও বলেছে: মিশরের কুরআনিক রেডিওর প্রতি আমার অনেক শ্রদ্ধা ও প্রশংসা রয়েছে। এই রেডিওর বক্তাদের কণ্ঠ শুনে আমি বড় হয়েছি।

উল্লেখ্য যে, মিশরের কুরআনিক রেডিও ১৯৬৪ সালের মার্চ মাসে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। এই রেডিওতে বিশ্বের মহান এবং বিখ্যাত ক্বারিদের তিলাওয়াত সম্প্রচারিত হয়। এই রেডিওতে ইসলামিক চিন্তাধারা বিষয়ক অনুষ্ঠানগুলি সম্প্রচারিত হয় এবং কুরআনিক প্রোগ্রাম প্রচারের কারণে মিশরীয়দের মধ্যে এর একটি বিশেষ স্থান রয়েছে। iqna

নাম:
ই-মেল:
* আপনার মন্তব্য:
* captcha: