IQNA

19:35 - July 20, 2017
সংবাদ: 2603468
ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের বিশিষ্ট ইসলামি গবেষক ও চিন্তাবিদ হযরত হুজ্জাতুল ইসলাম ওয়াল মুসলিমিন আহমাদ মুবাল্লিগ বলেছেন যে, সমাজে বসবাসকারী বিভিন্ন ধর্ম ও মাজহাবের অনুসারীদের সাথে আচরণের ক্ষেত্রে ইমাম জাফর সাদীকের (আ.) জীবনাদর্শ অনুকরণ করা অতীব জরুরী। আর যদি সেটা সম্ভব হয়, তবে আমাদের সমাজে সৌহার্দ ও সম্প্রীতির আলো ছড়িয়ে পড়বে।
ইমাম জাফর সাদীকের (আ.) জীবনাদর্শ অনুকরণ জরুরী: গবেষক
শাবিস্তানের উদ্ধৃতি দিয়ে বার্তা সংস্থা ইকনা'র রিপোর্ট: ইরানের বিশিষ্ট ইসলামি গবেষক ও চিন্তাবিদ হযরত হুজ্জাতুল ইসলাম ওয়াল মুসলিমিন আহমাদ মুবাল্লিগ ২৫শে শাওয়াল ইমামতিধারার ৬ষ্ঠ ইমাম তথা ইমাম জাফর সাদীকের (আ.) শাহাদত দিবস উপলক্ষে শাবিস্তান প্রতিবেদকের সাথে আলাপকালে বলেন: রাসূল (সা.) ও তার উত্তরসূরিগণ তথা মাসুম ইমামগণের (আ.) জীবনাদর্শ অনুকরণ ও অনুসরণ আমাদেরকে সামাজিক অবক্ষয় থেকে রক্ষা করতে পারে। বিশেষ করে সমাজের বিভিন্ন ধর্মের অনুসারীদের সাথে ইমাম জাফর সাদীকের (আ.) অনুসৃত পন্থা আমাদেরকে জীবন চলার পথে আলোর দিশারী হিসেবে পরিগণিত।

তিনি বলেন: আমাদের প্রত্যেক মাসুম ইমামগণই তাদের নিজ নিজ যুগে হেদায়েত ও দিকনির্দেশনার নক্ষত্র হিসেবে বিবেচিত। শুধু তাই নয়, তারা তাদের যুগ ও সময়ের মধ্যে সীমাবদ্ধ নয়; বরং তাদের আদর্শ ও চিন্তা-কর্ম যুগ যুগ ধরে মানুষকে সত্য ও ন্যায়ের পথে দিকনির্দেশনা দান করে থাকে। কিন্তু ইমাম জাফর সাদীকের সময়ে বিশেষ কিছু কারণে সমাজের নানাবিধ ধর্ম, মতাদর্শ ও মাজহাবের সৃষ্টি হয়েছিল। কিন্তু ইমাম (আ.) তার আধ্যাত্মিক জ্ঞান ও বিচক্ষণতার মাধ্যমে সমাজের সমস্ত ধর্ম ও মাজহাবসমূহের মানুষের সাথে যথোপযুক্ত উপায়ে আচরণ করতেন; যা অনেক সময় তাদেরকে বিপথগামীতা ও বিচ্যুতির পথ থেকে মুক্তির কারণ হত।

নাম:
ই-মেল:
* আপনার মন্তব্য:
* captcha: