IQNA

অর্থনৈতিক স্থিতির আশায় সুকুক মার্কেটে ফিরল পাকিস্তান

0:02 - October 05, 2022
সংবাদ: 3472585
তেহরান (ইকনা): আন্তর্জাতিক ঋণের চাপে জর্জরিত পাকিস্তানের অর্থনীতি। আন্তর্জাতিক ঋণ পরিশোধের কারণে ক্রমেই হ্রাস পাচ্ছে পাকিস্তানের বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ। অর্থনৈতিক এমন বিরূপ পরিস্থিতিতে স্থিতিশীলতা আশায় আন্তর্জাতিক সুকুক মার্কেটে ফিরছে দেশটির সরকার। ২০১৭ সালে পাঁচ বছরের ডলার সুকুক ইস্যু করার পর এই প্রথম আন্তর্জাতিক সুকুক মার্কেটে ফিরছে দেশটি।
২০২২ সালের জানুয়ারি মাসে ইউরোবন্ড মার্কেটে সাত বছর মেয়াদি সুকুক বিক্রি করে এক বিলিয়ন মার্কিন ডলার সংগ্রহ করেছে পাকিস্তান। যার ৭.৯৫ শতাংশ মুনাফা পরিশোধে খরচ করবে সরকার। এটা আন্তর্জাতিক বাজারে পাকিস্তানের সুকুক ঋণ নেওয়ার ইতিহাসে প্রদেয় সর্বোচ্চ রিটার্ন।
 
তা সত্ত্বে এটি দীর্ঘমেয়াদি শক্তিশালী অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির সম্ভাবনা বৃদ্ধি করেছে। যার মধ্যে আছে বিদ্যুৎ খাতের কর্মক্ষমতা বৃদ্ধি, রাজস্ব খাতের সংস্কার, রাজস্ব খাতের সমন্বয় ও ঋণ ব্যবস্থাপনা ইত্যাদি। পাকিস্তান সরকার লাহোর ও ইসলামাবাদকে সংযুক্তকারী এম২ মোটরওয়েকে সুকুকের অন্তর্নিহিত সম্পদ হিসেবে ব্যবহার করেছে। এ ছাড়া সুকুক মার্কেট থেকে সংগ্রহ করার অর্থ কিছু বড় অঙ্কের বৈদেশিক ঋণ পরিশোধের আগে পাকিস্তানের বৈদেশিক মুদ্রা বিনিময় বিভাগকে শক্তিশালী করেছিল। এটা সেই মুহূর্তে ঘটেছিল, ২০২১ সালের বিনিময় হার নির্ধারণের পর যখন আন্তর্জাতিক বাজারে তেলের মূল্য বৃদ্ধি এবং পাকিস্তানি রুপির মান কমে যাওয়ার কারণে দেশটি বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ প্রচণ্ড চাপে পড়েছিল।
 
গত জুনে পাকিস্তানের অর্থবিভাগ ঘোষণা করেছিল তারা অর্থনৈতিক স্থিতিশীলতা অর্জনের জন্য আরো সক্রিয় সুকুক ইস্যু করবে। পাকিস্তানের কেন্দ্রীয় ব্যাংক স্থানীয় বাজারে ‘ইজারা সুকুক’ ছেড়ে চলতি বছরের শেষ তিন মাসে ৮৫ বিলিয়ন পাকিস্তানি রুপি সংগ্রহের পরিকল্পনা ঘোষণা করেছে। আসন্ন সার্বভৌম সুকুকের পরিবর্তে ইসলামাবাদ এক্সপ্রেসওয়ের মতো কিছু কেন্দ্রীয় সম্পদ ব্যবহারের প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছে।
 
জাওয়া ডটকম অবলম্বনে
নাম:
ই-মেল:
* আপনার মন্তব্য:
captcha