IQNA

টমাস জেফারসনের কোরআনপ্রীতি ও প্রভাব

20:24 - November 30, 2022
সংবাদ: 3472907
তেহরান (ইকনা): মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের তৃতীয় প্রেসিডেন্ট ছিলেন টমাস জেফারসন (১৭৪৩-১৮২৬)। তাঁর সংগ্রহে ছিল হাজার হাজার বই। ১৮১৫ সালে তিনি মাত্র পাঁচ হাজার ডলার মূল্যে ব্যক্তিগত পাঠাগারের প্রায় সাড়ে ছয় হাজার বই লাইব্রেরি অব কংগ্রেসকে দেন। যুদ্ধের সময় ব্রিটিশদের দেওয়া আগুনে লাইব্রেরিটি পুড়ে গিয়েছিল।
জেফারসনের বইয়ে এই লাইব্রেরি নতুন জীবন লাভ করে। তাঁর বইগুলোর ভেতর ছিল জর্জ সেলের ইংরেজি অনুবাদ করা পবিত্র কোরআনের একটি কপি। এ গ্রন্থকে যুক্তরাষ্ট্রের অন্যতম অর্জন এবং ধর্মীয় ও সাংস্কৃতিক বৈচিত্র্যের অনন্য নিদর্শন হিসেবে বিবেচনা করা হয়।
লাইব্রেরি অব কংগ্রেসের সূত্র মতে জানা যায়, উইলিয়ামসবার্গ কলেজে আইন বিষয়ে পড়ার সময় টমাস জেফারসন দুই খণ্ডের অনুবাদ গ্রন্থটি কেনেন। ১৭৩৪ সালে মার্কিন আইনজীবী ও ওরিয়েন্টালিস্ট জর্জ সেল তা থেকে এর অনুবাদ করেছেন। ১৭৬৪ সালে লন্ডনে দুই খণ্ডবিশিষ্ট এ অনুবাদগ্রন্থের দ্বিতীয় সংস্করণ প্রকাশিত হয়। এই অনুবাদগ্রন্থটি বর্তমানে লাইব্রেরি অব কংগ্রেসে সংরক্ষিত আছে।
 
জেফারসনের কোরআন অনুবাদের গুরুত্ব : জেফারসনের অনুবাদগ্রন্থের গুরুত্ব মার্কিন রাজনীতিতে দিন দিন বেড়েই চলছে। ২০০৭ সালে যুক্তরাষ্ট্রের মিনেসোটা রাজ্য থেকে কিথ এলিসন প্রথম মুসলিম হিসেবে হাউস অব রিপ্রেজেন্টেটিভ নির্বাচিত হন। তখন তিনি জেফারসনের সংগৃহীত পবিত্র কোরআনে হাত রেখে শপথ গ্রহণ করেন। ২০১৯ সালে নির্বাচিত মুসলিম প্রতিনিধি রাশিদা তালিব ও ইলহাম ওমরও একইভাবে পবিত্র এ গ্রন্থ স্পর্শ করে শপথ নেন। গত বছর অনুষ্ঠিত দুবাই এক্সপো ২০২০-এর যুক্তরাষ্ট্র প্যাভিলিয়নে তিন মাসের জন্য পবিত্র কোরআনের এ অনুবাদগ্রন্থ প্রদর্শনীতে রাখা হয়েছিল।
 
মুসলিমদের সঙ্গে জেফারসনের সম্পর্ক : ভূরাজনৈতিক কারণে মুসলিম বিশ্বের প্রতি তীক্ষ্ম বুদ্ধির অধিকারী জেফারসনের আগ্রহ ছিল প্রবল। কোরআনের অনুবাদ পড়ার আগ্রহ তৈরির পেছনে কী কারণ ছিল এ প্রসঙ্গে মার্কিন ইতিহাসবিদ ডেনিস এ. স্পেলবার্গ বলেছেন, ১৭৬৫ সালে আইনের ছাত্র থাকাবস্থায় জেফারসন কোরআনের অনুবাদগ্রন্থটি ক্রয় করেন। মূলত ধর্মীয় সহনশীলতা নিয়ে ইংরেজি দার্শনিক জন লক লিখিত ‘অ্যা লেটার কনসারনিং টলারেশন’ বইটির প্রতি জেফারসনের মুগ্ধতা ছিল। ১৭৭৭ সালে নানা প্রচেষ্টায় তৎকালীন মরক্কো সর্বপ্রথম আমেরিকার স্বাধীনতাকে স্বীকৃতি দেয়। মুসলিমদের ধর্মীয় অধিকার প্রতিষ্ঠায় নানামুখী ভূমিকা রাখায় জেফারসন আমেরিকান মুসলিমদের কাছে স্মরণীয় ব্যক্তিত্ব।
 
আমেরিকাকে প্রথম স্বীকৃতি দেয় যে রাষ্ট্র : আমেরিকাকে প্রথম স্বীকৃতি দিয়েছিল আরব রাষ্ট্র মরক্কো। এদিকে ১৮০৫ সালে প্রেসিডেন্ট জেফারসন তিউনিশিয়ান রাষ্ট্রদূতের সম্মাননায় ইফতারের আপ্যায়ন করেন। সেটাই ছিল হোয়াইট হাউসে অনুষ্ঠিত প্রথম ইফতার অনুষ্ঠান। এরপর থেকে প্রতিবছরই মুসলিম কূটনীতির সম্মাননায় ইফতার আয়োজন করা হয়। ২০১২ সালে ইফতার অনুষ্ঠানে সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা তাঁর বক্তব্যে এসব তথ্য জানান।
 
তৃতীয় মার্কিন প্রেসিডেন্ট টমাস জেফারসন : তিনি ছিলেন একাধারে রাজনীতিবিদ, কূটনীতিক, আইনজীবী, স্থপতি, সংগীতজ্ঞ, দার্শনিক ও যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিষ্ঠাতাদের অন্যতম। যুক্তরাষ্ট্রের প্রথম পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিসেবে ১৭৯০-১৭৯৩ সালে দায়িত্ব পালন করেন। এরপর ১৮০১ থেকে ১৮০৯ সাল পর্যন্ত মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের তৃতীয় রাষ্ট্রপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। এত কিছুর পরও তিনি ছিলেন একজন বইপোকা। ১৮২৫ সালে জেফারসন ভার্জিনিয়া বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিটি একাডেমিক ভবনের নকশা তিনি প্রণয়ন করেন। তা ছাড়া বিশ্ববিদ্যালয়ের সিলেবাস ও সার্বিক পাঠ্যক্রমও তিনি ঠিক করে দেন।
 
জর্জ সেলের অনুবাদের কারণ : ১১৪৩ সালে ইউরোপে লাতিন ভাষায় সর্বপ্রথম কোরআনের অনুবাদ করেন রবার্ট অব কেটন (Robertus Ketenensis)| তবে উদ্দেশ্যমূলক ও অতিরঞ্জিত এ অনুবাদ কয়েক শ বছর ধরে কোরআন ও ইসলাম সম্পর্কে জানার একমাত্র উৎস ছিল। ১৬৫৯ সালে রাজা প্রথম চার্লস এর চ্যাপলেইন আলেক্সজান্ডার রোস (Alexander Ross) ফ্রেঞ্চ থেকে ইংরেজিতে অনুবাদ করেন। অতঃপর ১৭৩৪ সালে মার্কিন আইনজীবী ও প্রাচ্যবিদ জর্জ সেল  (George Sale) পবিত্র কোরআনের ইংরেজি অনুবাদ করেন। এ ক্ষেত্রে লুইগি মারাচ্চি  (Louis Maracci)-এর ল্যাটিন অনুবাদে তিনি নির্ভর করেন। ফরাসি দার্শনিক ফ্রঁসোয়া-মারি আরুয়ের (ভলতেয়ার) রচনার সেলের অনুবাদ সম্পর্কে বর্ণনা পাওয়া যায়। অবশ্য সেলের এ অনুবাদে জ্ঞানচর্চায় নিষ্ঠাপূর্ণ অনুবাদের চেয়ে খ্রিস্টান মিশনারিদের কথা বিবেচনা করা হয়েছে বলে মনে করা হয়। তা ছাড়া জর্জ সেল ‘দ্য জেনারেল ডিকশনারি’ নামে ১০ খণ্ডের অভিধান রচনা করেন।

 

নাম:
ই-মেল:
* আপনার মন্তব্য:
captcha