IQNA

13:40 - March 22, 2017
সংবাদ: 2602762
আন্তর্জাতিক ডেস্ক: সংখ্যালঘু রোহিঙ্গা মুসলিম সম্প্রদায়ের কয়েকজনকে নাগরিকত্ব দিতে মিয়ানমার সরকার পরিকল্পনা করার পর রাখাইন রাজ্যে বৌদ্ধরা প্রচণ্ড বিক্ষোভ করেছে। সরকারের পরিকল্পনার বিরুদ্ধে ক্ষোভ জানিয়ে রোববার রাস্তায় নেমে আসে শত শত কট্টরপন্থী বৌদ্ধ।

বার্তা সংস্থা ইকনা: রাজ্যের রাজধানী সিত্তেতে বিক্ষোভের নেতৃত্ব দেয় রাখাইনের কর্তৃত্বে থাকা আরাকান ন্যাশনাল পার্টি। ওই এলাকায় একসময় অনেক রোহিঙ্গার বসতি থাকলেও ২০১২ সালে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গার পর অনেকে ঘরবাড়ি ছাড়তে বাধ্য হয়েছিলেন।

রোহিঙ্গাবিরোধী বিক্ষোভের আয়োজকদের একজন হলেন অং হোতে। তিনি বলেন, ‘আমরা বিক্ষোভ করে সরকারকে বোঝানোর চেষ্টা করছি, যেন সরকার


সঠিকভাবে ১৯৮২ সালের নাগরিকত্ব আইন অনুসরণ করে। সরকারকে রোহিঙ্গাদের নাগরিকত্ব দিতে আমরা দেবো না।’

জাতিসংঘের সাবেক মহাসচিব কফি আনানের নেতৃত্বাধীন কমিশনের পক্ষ থেকে রোহিঙ্গাদের নাগরিকত্ব প্রদানের বিষয়টি পুনর্বিবেচনার জন্য মিয়ানমার সরকারকে আহ্বান জানানোর তিন দিন পর এ বিক্ষোভ অনুষ্ঠিত হলো। রোহিঙ্গাদের স্বাধীনভাবে চলাফেরার ওপর যে কড়াকড়ি রয়েছে তা-ও তুলে নেয়ার আহ্বান জানিয়েছিল ওই কমিশন।

রাখাইন অ্যাডভাইজরি কমিশন নামের ওই দলটির সদস্য ঘাসান সালামে গত সপ্তাহে বলেন, ‘আমরা নাগরিকত্বের প্রশ্নটি দেখছি। যারা নাগরিক হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছেন তারাও যেন নাগরিকত্বের সব সুযোগ-সুবিধা পান সে বিষয়টি নিশ্চিত করার জন্যও আহ্বান জানাচ্ছি আমরা।’

গত ৯ অক্টোবর বাংলাদেশ সীমান্তবর্তী এলাকায় এক হামলায় ৯ পুলিশ নিহত হওয়ার পর তার দায় চাপানো হয় রোহিঙ্গাদের ওপর। আর তখন থেকেই শুরু হয় সেনাবাহিনীর দমন-নিপীড়ন। হত্যা করা হয় শত শত রোহিঙ্গাকে। পুড়িয়ে দেয়া হয় গ্রামের পর গ্রাম। পাশবিক নির্যাতন করা হয় নারীদের। বাড়িঘর ছেড়ে বাংলাদেশে পালিয়ে আসে হাজার হাজার রোহিঙ্গা।
 
এ দিকে মালয়েশিয়ার মারাংয়ের কামপুং পাক মাদাহ এলাকার একটি বাড়ি থেকে এক রোহিঙ্গার লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। তাকে হত্যার দায়ে আরো তিন রোহিঙ্গাকে খুঁজছে মালয়েশীয় পুলিশ। শনিবার রাতে এ হত্যাকাণ্ড ঘটে। সূত্র: mtnews24
নাম:
ই-মেল:
* আপনার মন্তব্য:
* captcha: