IQNA

0:19 - December 15, 2019
সংবাদ: 2609836
আন্তর্জাতিক ডেস্ক : ভারতের লোকসভা ও রাজ্যসভায় পাশ হয় নাগরিকত্ব সং'শো'ধ'নী বিল। এরপর বৃহস্পতিবার রাতে সেই বিলে সম্মতি দেন ভারতের রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ।

বার্তা সংস্থা ইকনা'র রিপোর্ট: আইনে পরিণত হয় সেই বিল। আইন তৈরির পর থেকে দেশের বিভিন্ন জায়গায় বি'ক্ষো'ভ শুরু হয়েছে। উত্তর-পূর্বের পর বি'ক্ষো'ভের আঁচ ছড়িয়েছে বাংলাতেও। পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান আগেই ভারতকে নাগরিকত্ব বিল নিয়ে আ'ক্র'ম'ণ করেছেন। এবার বি'স্ফো'রক বার্তা দিলেন পাকিস্তানের রেলমন্ত্রী।

পাক রেলমন্ত্রী শেখ রশিদ আহমেদ লাহোরে একটি বার্তা দিয়েছেন। সেখানে পাকিস্তানের মুসলিমদের উদ্দেশ্যে বলেছেন, সেদেশের মুসলিমরা যাতে ভারতীয় মুসলিমদের পাসে দাঁড়ায়।

তিনি বলেন, 'কাশ্মীর ও ভারতের মুসলিমদের পাশে থাকা আমাদের দায়িত্ব। যেভাবে মোদী মুসোলিনি হি'ট'লার ভারতের মুসলিমদের জন্য স'ম'স্যা তৈরি করছেন, তাতে ভারত-পাকিস্তান দুই দেশের মধ্যে বি'ভে'দ বাড়বে। যার ফলে দুই দেশ যু'দ্ধে'র মুখোমুখি হতে পারে।

এর আগে ইমরান খান টুইটে লিখেছিলেন, 'এই বিলের ফলে ভারতের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক চুক্তি ল'ঙ্ঘি'ত হয়েছে। আন্তর্জাতিক স্ত'রে মানবাধিকার বি'রো'ধী এই বিল। সংখ্যালঘুদের অধিকার ল'ঙ্ঘি'ত হবে এই বিল পাস হওয়ার ফলে।'

গত ৫ অগস্ট জম্মু এবং কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা তুলে নেয় কেন্দ্র। এই ধারা তুলে নেওয়ার পাশাপাশি জম্মু এবং কাশ্মীরকে কেন্দ্র শাসিত অঞ্চল হিসাবে ঘোষণা করে ভারত। এই ঘোষণার পর থেকেই ভারত-পাক দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক তলানিতে এসে ঠেকেছে।

দুই দেশের এই দ্ব'ন্দ্বের মাঝেই নাগরিকত্ব সং'শো'ধ'নী আইন তৈরি হয়েছে। এই বিলের ফলে ৩১ ডিসেম্বর ২০১৪ সালে ভারতের পার্শ্ববর্তী দেশগুলি যেমন পাকিস্তান, আফগানিস্তান এবং বাংলাদেশের সংখ্যালঘু নাগরিক যারা ভারতে এসেছেন।

তাদের প্রত্যেককে শ'র'ণা'র্থী হিসাবে ভারতের নাগরিকত্ব প্রদান করা হবে। এই শ'র'ণা'র্থী হিসাবে হিন্দু, খ্রিশ্চান, জৈন, শিখ এদের উল্লেখ করা হয়েছে।
সূত্র: mtnews24

নাম:
ই-মেল:
* আপনার মন্তব্য: