IQNA

22:52 - January 18, 2020
সংবাদ: 2610066
আন্তর্জাতিক ডেস্ক: ইরানের ইসলামি গার্ড বাহিনীর (আইআরজিসি) কুদস ফোর্সের প্রধান জেনারেল কাসেম সোলেইমানিকে হত্যার দায়ে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এবং তার সরকারের শীর্ষ স্থানীয় কর্মকর্তাদের প্রাণদণ্ড হওয়া উচিত। ইরানের ইংরেজি নিউজ চ্যানেল প্রেসটিভিকে দেয়া সাক্ষাৎকারে এমন মন্তব্য করেছেন মার্কিন লেখক, সাংবাদিক এবং রেডিও উপস্থাপক কেভিন ব্যারেট।

সোলেইমানি হত্যার দায়ে ট্রাম্পের ফাঁসি চান মার্কিন সাংবাদিকবার্তা সংস্থা ইকনা'র রিপোর্ট: তিনি বলেন, মিথ্যা এবং অসত্য দাবির ওপর ভিত্তি করে এই হত্যাকাণ্ড ঘটানো হয়েছে। শুধু হত্যাকাণ্ড নয়, বরং এটি যুদ্ধাপরাধ বলে উল্লেখ করে তিনি বলেন, একে পুরোপুরি অবৈধই বলতে হবে।

ইসলামিক এবং আরবি স্টাডিজের ওপর পিএইচডি ডিগ্রিধারী ব্যারেট বলেন, আমেরিকায় এখনও খুনিদের প্রাণদণ্ড কার্যকর করা হয়। তাই ট্রাম্প এবং তার পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেওসহ এ অপরাধের সঙ্গে যারা জড়িত তাদের সবার প্রাণদণ্ড হওয়া উচিত।

গত ৩ জানুয়ারি বাগদাদের আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরের কাছে ড্রোন হামলা চালিয়ে কুদস ফোর্সের প্রধান জেনারেল কাসেম সোলেইমানি ও ইরাকের আধা সামরিক বাহিনী পিএমইউর সেকেন্ড-ইন-কমান্ড আবু মাহদি আল-মুহানদিসসহ অন্তত ১০ জনকে হত্যা করে মার্কিন সামরিক বাহিনী।

ইরানের সামরিক বাহিনীর এই কমান্ডার হত্যাকাণ্ডের জবাবে ইরাকে মার্কিন ঘাঁটিতে তেহরানের ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় মধ্যপ্রাচ্যে উত্তেজনা তৈরি হয়েছে। এর মাঝেই ইরানের পার্লামেন্টে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক অবনমনের পক্ষে একটি প্রস্তাব পাস হয়েছে।

উত্তেজনার পরিপ্রেক্ষিতে ছয় বিশ্ব শক্তির সঙ্গে ২০১৫ সালে স্বাক্ষরিত পারমাণবিক চুক্তির শর্ত উপেক্ষা করে ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধকরণের মাত্রা বাড়ানোর ঘোষণা দিয়েছে ইরান।

বৃহস্পতিবার রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে দেয়া এক ভাষণে দেশটির প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি বলেছেন, পারমাণবিক চুক্তি স্বাক্ষরের আগে যে পরিমাণ ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধ করা হয়েছিল, বর্তমানে তার চেয়ে আরও বেশি ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধ করা হচ্ছে।
সূত্র: jagonews24

নাম:
ই-মেল:
* আপনার মন্তব্য: