IQNA

21:22 - February 12, 2020
সংবাদ: 2610220
আন্তর্জাতিক ডেস্ক: যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে দীর্ঘ সময়ের সামরিক চুক্তি বাতিল করেছে ফিলিপাইন। দুই দশক ধরে দেশটির নিরাপত্তায় কাজ করেছে মার্কিন সেনারা। তবে মঙ্গলবার ফিলিপাইন জানিয়েছে, তারা ইতিমধ্যে এই চুক্তি বাতিলের বিষয়টি যুক্তরাষ্ট্রকে আনুষ্ঠানিকভাবে জানিয়েছে।

বার্তা সংস্থা ইকনা'র রিপোর্ট: ঐতিহাসিকভাবে ফিলিপাইন যুক্তরাষ্ট্রের উপনিবেশ ছিলো। বর্তমানে দেশটির প্রেসিডেন্ট রদ্রিগো দুতের্তে প্রতিবেশী চীনের দিকে ঝুঁকে পড়েছেন। ক্রমশ যুক্তরাষ্ট্র থেকে দূরে সরে আসার নীতি গ্রহণ করছেন তিনি। সাম্প্রতিক সময়ে দেখা গেছে, দুতের্তে দক্ষিণ চীন সাগর নিয়ে চীনের দাবির প্রতি স্বর নরম করছেন।

অর্থাৎ, চীনের সঙ্গে ফিলিপাইনের নতুন বোঝাপড়ার বিষয়টিও যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে সামরিক চুক্তি বাতিলে প্রভাব ফেলছে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা। এই চুক্তির ফলে যুক্তরাষ্ট্রের সেনাবাহিনী ফিলিপাইনের সামরিক ঘাঁটিগুলোতে প্রবেশাধিকার পেতো। এর অধীনে এখন পর্যন্ত অন্তত ৩০০ যৌথ মহড়ায় অংশ নিয়েছে দুই দেশের সেনারা। চুক্তি বাতিলের ফলে ওইসব কর্মকা- এখন কঠিন হয়ে পড়বে।

নতুন এ পদক্ষেপের মধ্য দিয়ে দুতের্তে চাইছেন যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে দূরত্ব বৃদ্ধি করতে। দুতের্তের নতুন এই সিদ্ধান্ত নিয়ে অসন্তোষ রয়েছে ফিলিপাইনের আইনপ্রণেতাদের মধ্যেও। তাদের একটি বড় অংশ মনে করেন, যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে এ চুক্তি হচ্ছে দেশটির জন্য রক্ষাকবজ। এ ধরনের বিরোধিতাকারীদের নিজের জন্য হুমকি হিসেবে চিহ্নিত করবেন বলে জানিয়েছেন দুতের্তে।

সাম্প্রতিক সময়ে দুতের্তের সরকারের সঙ্গে সম্পর্কে ফাটল ধরেছে যুক্তরাষ্ট্রের। ফিলিপাইনে মাদকের বিরুদ্ধে শক্ত অবস্থান গ্রহণ করেছেন দুতের্তে। তার বিরুদ্ধে আছে মাদকের সঙ্গে সংশ্লিষ্টদের বিনা বিচারে হত্যার অভিযোগ। এ কাজে তার সহযোগী হিসেবে পরিচিত সিনেটর রোনাল্ড ডেলা রোসাকে যুক্তরাষ্ট্রের ভিসা দেয়া হয়নি। এরপর থেকে সম্পর্কে ফাটল ধরেছে দু’দেশের।

অপরদিকে, দক্ষিণ চীন সাগরে চীনের ক্রমবর্ধমান প্রভাবের বিরুদ্ধে এই চুক্তি এতদিন ভারসাম্য হিসেবে কাজ করতো। কিন্তু তা বাতিলের ফলে চীনের কথিত আগ্রাসনের মুখে পড়তে হতে পারে ফিলিপাইনকে।
সূত্র: mzamin

নাম:
ই-মেল:
* আপনার মন্তব্য: