IQNA

11:33 - July 09, 2020
সংবাদ: 2611105
তেহরান (ইকনা): মিয়ানমারের পশ্চিম রাখাইন ও চিন প্রদেশে বিমান হামলা চালিয়ে শিশুসহ বেসামরিক নাগরিকদের হত্যা করে সামরিক বাহিনী। চলতি বছরের মার্চ এবং এপ্রিলে এই হামলার ঘটনা ঘটে। আল-জাজিরা জানায়, রাখাইন ও চিনে এই হা'মলার ঘ'টনায় মিয়ানমারের বিরুদ্ধে যুদ্ধাপরাধের অভিযোগ এনেছে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংগঠন অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল।

করোনা পরিস্থিতির মধ্যে বৌদ্ধ ধর্মালম্বী রাখাইন বিচ্ছিন্নতাবাদী গোষ্ঠী দমনে নিরীহ গ্রামবাসীদের ওপর এই হা'মলা চালায় মিয়ানমারের সেনাবাহিনী, যারা তাতমাদাও হিসেবেও পরিচিত। সেখানে যুদ্ধপরাধের তদন্তে'র জন্য জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের প্রতি আহ্বান জানায় অ্যামনেস্টি।

মার্চ ও এপ্রিলের ওই হামলার নতুন কিছু তথ্যপ্রমাণ সংগ্রহ করে অ্যামনেস্টি। এক প্রতিবেদনে তারা জানায়, চিন প্রদেশের বেশ কয়েকটি গ্রামে বোমা হামলা চালানো হয়, যাতে ১২ জনেরও বেশি বেসামরিক লোক নিহত হয়।

মার্চের মাঝামাঝি পালেতওয়া উপশহরে এক হা'মলার প্রত্যক্ষদর্শীর সাক্ষাৎকার নেয় আন্তর্জাতিক সংস্থাটি। ওই ব্যক্তি জানান, মিয়ানমার সামরিক বাহিনীর ফেলা বোমায়, তার চাচা, তার ভাই এবং ভাইয়ের ১৬ বছর বয়সী বন্ধু নিহ'ত হয়।

একই এলাকার আরেক পরিবারের দুই ব্যক্তি জানান, বো'মা হা'ম'লায় সাত বছরের এক শিশুসহ পরিবারটির নয়জন নিহ'ত হন। শিশুটির বাবা অ্যামনে'স্টিকে বলেন, আমার পরিবার ধ্বং'স হয়ে গেছে। এপ্রিলে পালেতওয়ায় আরেকটি বিমান হা'ম'লায় ৭ জন বেসা'মরিক লোককে হ'ত্যা করে মিয়ানমারের সাম'রিক বাহি'নী। প্রত্য'ক্ষদ'র্শী এক কৃষক জানান, ওই ঘ'টনায় আরও ৮ জন আহ'ত হয়।

বৌদ্ধ ধর্মা'ল'ম্বী রাখাইন জা'তিগো'ষ্ঠীর স'শ'স্ত্র সং'গঠন আরা'কান আ'র্মি ও তাতমাদাওর মধ্যে সং'ঘ'র্ষে হা'ম'লার শি'কার হয় এসব বেসামরিক লোক। রাখাইন রাজ্যের স্বায়'ত্তশা'সনের জন্য মিয়ানমার বাহি'নীর বিরু'দ্ধে ল'ড়ছে আরা'কান আ'র্মি।

সংখ্যালঘু মুসলিম রোহিঙ্গা গো'ষ্ঠীও এই রাখাইনের বাসিন্দা। ২০১৭ সালে মিয়ানমার বাহি'নীর অভি'যানের মু'খে সাড়ে সাত লাখেরও বেশি রোহিঙ্গা বাংলাদেশে পা'লিয়ে আসে। তাদের ওপর গ'ণহ'ত্যা, গ'ণধ'র্ষ'ণ, অ'গ্নিসং'যোগ, নি'পীড়'নের অভি'যোগ আনা হয় মিয়ানমারের বি'রু'দ্ধে।

সূত্র: mtnews24

নাম:
ই-মেল:
* আপনার মন্তব্য:
* captcha: