IQNA

20:22 - November 23, 2020
সংবাদ: 2611859
২৭ বছর পর 'অগদাম' অঞ্চল ফিরে পাওয়ায় আনন্দে ভাসছে আজারবাইজান। আর্মেনিয়ার দখল থেকে মুক্ত 'অগদাম' অঞ্চলে শুক্রবার আজারবাইজানের সেনাবাহিনী প্রবেশ করেছে। তারা আনুষ্ঠানিকভাবে ওই অঞ্চলের নিয়ন্ত্রণ গ্রহণ করেছে।

প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় বলেছে, ২৭ বছর আগে যেসব আজারি ভিটেমাটি ছাড়তে বাধ্য হয়েছিল এখন তারা ফিরে আসতে পারবে। তাদের ফিরে আসার সুযোগ তৈরি হয়েছে। 'অগদাম' এলাকাটি রাজধানী বাকু থেকে ৩৭৮ কিলোমিটার দক্ষিণ-পূর্বে অবস্থিত। এটি নাগার্নো-কারাবাখের একটি গুরুত্বপূর্ণ জেলা হিসেবে পরিচিত। ১৯৯৩ সালে এই জেলাটিকে দখলে নিয়েছিল আর্মেনিয়া।

দীর্ঘ কয়েক সপ্তাহের যুদ্ধের পর ১০ নভেম্বর রাশিয়ার তত্ত্বাবধানে আর্মেনিয়া ও আজারবাইজান নাগার্নো-কারাবাখে যুদ্ধ বন্ধে সম্মত হয়েছে। চুক্তির বাস্তবায়ন তদারকি করতে এরই মধ্যে নাগার্নো-কারাবাখ অঞ্চলে রুশ সেনা মোতায়েন করা হয়েছে।

এই দুই দেশের স্বাক্ষরিত চুক্তিতে বলা হয়েছে, আর্মেনিয়া দখলীকৃত 'অগদাম', লাচিন ও কালবাজার এলাকা আজারবাইজানের কাছে হস্তান্তর করবে।

এই অঞ্চলের গুরুত্বপূর্ণ একটি অংশ হচ্ছে আগদাম গ্র্যান্ড মসজিদ। এই মসজিদটি আর্মেনিয়ানদের হাত থেকে মুক্ত করার জন্য দীর্ঘ ২৭ বছর পর আবারও উজ্জীবিত হয়েছে।

১৯৯০-এর দশকে নাগর্নো-কারাবাখ অঞ্চল আর্মেনিয়া দখল করেছিল।

আজারী বাহিনী কর্তৃক এই অঞ্চল পুনরায় মুক্ত করার পরে, পাকিস্তানে অবস্থিতি আজারবাইজানের রাষ্ট্রদূত "আলী আলিজাদেহ" এক টুইট বার্তায় লিখেছেন: “আর্মেনিয়ার দখলের পর আগদাম গ্র্যান্ড মসজিদের আংশিক স্থান ধ্বংস হয়ে গেছে এবং দীর্ঘ ২৭ বছর পর এটি আবারও সজীবতা ও জাঁকজমকতা ফিরে পেয়েছে”।

আজারবাইজানের সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, গ্র্যান্ড মসজিদটি উদ্ধারের পর এখানে আযান ও জুমার নামাজ আদায় করা হয়েছে।

নাগর্নো-কারাবাখের সাতটি জেলার মধ্যে আগদাম একটি। এই অঞ্চলটি ১৯৯০ দশকের গোঁড়ার দিকে আর্মেনিয়ান বাহিনী দখল করেছিল। ১১ ই নভেম্বর, আজারবাইজানের সেনাবাহিনী আর্মেনিয়ার সাথে ভয়াবহ সংঘাতের অবসানের পরে রাশিয়ার মধ্যস্থতায় যুদ্ধবিরতি চুক্তির ঘোষণার পরে এই অঞ্চলটি মুক্ত করে। iqna

 

 
احیای مسجد جامع آغدام در قره‌باغ پس از 27 سال
 
احیای مسجد جامع آغدام در قره‌باغ پس از 27 سال
 
احیای مسجد جامع آغدام در قره‌باغ پس از 27 سال
নাম:
ই-মেল:
* আপনার মন্তব্য:
* captcha: