IQNA

ইউরোপিয়ান শিয়া ওলামা পরিষদের প্রধান:

কীভাবে অন্যদের গোনাহের অংশীদারি হচ্ছি + ভিডিও

20:42 - May 26, 2021
সংবাদ: 2612856
তেহরান (ইকনা): হুজ্জাতুল ইসলাম ওয়াল মুসলেমিন সাইয়্যেদ আলী রেজা রাজাভি বলেছেন: এটি জেনে রাখা খুব গুরুত্বপূর্ণ যে, পাপীব্যক্তি পাপকর্ম করার ক্ষেত্রে দুর্বল হয়ে পড়বে, যদি কেবলমাত্র একজন ব্যক্তি তার সেই পাপকর্মের বিরোধিতা করে। পক্ষান্তরে শুধুমাত্র একজন ব্যক্তি যদি তার পাপকর্মের সহায়তা ও সমর্থন করে, তাহলে সেই পাপীব্যক্তি পাপকর্ম করার জন্য উৎসাহ পাবে। অনেক সময় আমরা পাপকর্ম সম্পাদনের ক্ষেত্রে পাপী ব্যক্তিকে সাহায্য করি না। তবে তার সেই পাপকর্মকে চুপ করে সহ্য করি। আর এই নীরবতার অর্থ হলে সেই পাপ কাজের অংশীদারি হওয়া।

ব্রিটিশ ইসলামিক সেন্টার এবং লন্ডনে ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের ব্রডকাস্টিং অফিসের পক্ষ থেকে “কুরআনী জীবনধারা” শিরোনামে ধারাবাহিক আলোচনায় ইউরোপিয়ান শিয়া ওলামা পরিষদের প্রধান হুজ্জাতুল ইসলাম ওয়াল মুসলেমিন সাইয়্যেদ আলী রেজা রাজাভি এ কথা বলেছেন। এই প্রসিদ্ধ আলেমের বক্তব্যটি নীচে তুলে ধরা হল:

অসীম দয়াময় ও অনন্ত করুণাময় আল্লাহর নামে

...وَلَا تَعَاوَنُوا عَلَى الْإِثْمِ وَالْعُدْوَانِ

গুনাহ ও সীমালঙ্ঘনের কাজে পরস্পরকে সহায়তা কর না। (সূরা মায়েদা, আয়াত: ২)

আমরা অনেক সময় ঘনিষ্ঠ বন্ধু বা পরিবারের সদস্য হওয়ার কারণে তাদের পক্ষে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিই। এটা ভালোভাবে জানি যে, তারা যে কাজ করছে তা ভুল এবং সেই কাজের জন্য আল্লাহ তায়ালা সন্তুষ্ট নয়। কখনও কখনও এগুলি নৈতিক বিষয় এবং আমরা জানি যে এটি ভুল, এমতাবস্থায় আমরা নিশ্চুপ থাকি।

কেন? কারণ, তারা আমাদের পরিবারের সদস্য। ভাই, বোন, মা অথবা বাবা। অথবা অতি কাছে মানুষ। একজন বন্ধু।

কিন্তু পবিত্র কুরআনের সূরা মায়েদার দ্বিতীয় আয়াতে সুস্পষ্টভাবে বলা হয়েছে:

...وَلَا تَعَاوَنُوا عَلَى الْإِثْمِ وَالْعُدْوَانِ

অর্থ: গুনাহ ও সীমালঙ্ঘনের কাজে পরস্পরকে সহায়তা কর না।

অনেক সময়, যেহেতু আমরা পরিবারের সদস্য অথবা কাছের মানুষদের ভাল এবং আনন্দদায়ক কাজের অংশীদার হয়, এজন্য আমরা অনুভব করি যে তাদের খারাপ কাজগুলিতেও আমাদের সহায়তা করতে হবে। অনেক সময় আমরা সাহায্যও করি না, তবে তাদের অন্যায় কর্মের সম্মুখে চুপ থাকি। এই নীরবতার অর্থ অন্যায়কে সহ্য করা এবং তার অন্যায় বা পাপকাজের অংশীদারি হওয়া। সুতরাং, পরিবারের সদস্য অথবা বন্ধুদের যদি সত্যিই ভালোবেসে থাকেন, তাহলে তাদের খারাপ কাজে বাধা দেন। কারণ তারা যে (অন্যায় বা পাপ) কাজ করছে, তা দ্বারা তাদের আত্মা, পরকাল, সম্মান এবং এমনকি দেহ ও জীবনের ক্ষতি করছে।

অতএব, পরিবারের কোনও সদস্য বা বন্ধুদের খারাপ কাজে সাহায্য করবেন না। কখনও কখনও আপনার উৎসাহ অথবা নিশ্চুপতার কারণে তারা তাদের পাপকর্মে উৎসাহিত পাবে এবং এর অংশীদার আপনিও হবেন। আর তাদের সমপরিমাণ শাস্তি আপনাকেও পেতে হবে।

এটি জেনে রাখা খুব গুরুত্বপূর্ণ যে, পাপীব্যক্তি পাপকর্ম করার ক্ষেত্রে দুর্বল হয়ে পড়বে, যদি কেবলমাত্র একজন ব্যক্তি তার সেই পাপকর্মের বিরোধিতা করে। পক্ষান্তরে শুধুমাত্র একজন ব্যক্তি যদি তার পাপকর্মের সহায়তা ও সমর্থন করে, তাহলে সেই পাপীব্যক্তি পাপকর্ম করার জন্য উৎসাহ পাবে। অনেক সময় আমরা পাপকর্ম সম্পাদনের ক্ষেত্রে পাপী ব্যক্তিকে সাহায্য করি না। তবে তার সেই পাপকর্মকে চুপ করে সহ্য করি। আর এই নীরবতার অর্থ হলে সেই পাপ কাজের অংশীদারি হওয়া। এটি মনে রাখা খুব গুরুত্বপূর্ণ:

...وَلَا تَعَاوَنُوا عَلَى الْإِثْمِ وَالْعُدْوَانِ

অর্থ: গুনাহ ও সীমালঙ্ঘনের কাজে পরস্পরকে সহায়তা কর না।
iqna

নাম:
ই-মেল:
* আপনার মন্তব্য:
captcha