IQNA

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র;

ইরানের বিরুদ্ধে সর্বোচ্চ চাপের ক্যাম্পেইন ছিল শোচনীয় ব্যর্থতা + ভিডিও

0:03 - January 31, 2022
সংবাদ: 3471362
তেহরান (ইকনা): মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র নেড প্রাইস এই গত ২৫ জানুয়ারি ২০২২ বলেছেন : "ইরানের বিরুদ্ধে ( মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ) সর্বোচ্চ চাপের ( স্যাংকশন , অবরোধ ও নিষেধাজ্ঞা ) ক্যাম্পেইন ছিল শোচনীয় ব্যর্থতা । ( ট্রাম্প প্রশাসনে ইরানের বিরুদ্ধে অবরোধ ও নিষেধাজ্ঞা আরোপ সংক্রান্ত ) যা কিছু প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছিল সেটার বিপরীতটাই সত্য বলে প্রতিভাত হয়েছে ও ঘটেছে!! "

মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র নেড প্রাইসের স্পষ্ট এ বক্তব্যের ভিডিও ক্লিপ বিদ্যমান অথচ বড় বড় পশ্চিমা সংবাদ মাধ্যম ইরানের উপর মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের আরোপিত কঠর অবরোধ ও নিষেধাজ্ঞা যা ৮০০ বছর আগে ইরানে মঙ্গোল হামলার পরে ইতিহাসের সবচেয়ে কঠোর অবরোধ তা শোচনীয় ভাবে ব্যর্থ হওয়া সংক্রান্ত মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র নেড প্রাইসের এ উক্তি প্রচার না করে প্রচার করছে যে মার্কিন অবরোধ ও নিষেধাজ্ঞার কারণে ইরানের অর্থনীতির কোমর ভেঙে গেছে এবং ইরান এ কারণে আলোচনার টেবিলে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সাথে পারমাণবিক বিষয়ক আলোচনায় বসে সমঝোতায় আসতে বাধ্য হবে ! এ ধরণের বহু হাবিজাবি রাবিশ কথাবার্তা পাশ্চাত্যের এ সব  সংবাদ মাধ্যমগুলো বলে বেড়াচ্ছে যা দিয়ে তারা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের আরোপিত নিষেধাজ্ঞার ব্যর্থতা ঢাকার চেষ্টা করছে।

 

(কিন্তু পশ্চিমা মিডিয়ায় মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের মুখপাত্রের এ উক্তি ও বক্তব্য প্রচারিত হওয়ার বিষয়টি এখন পর্যন্ত আমার দৃষ্টিগোচর হয় নি ও চোখে পড়ে নি। আর এখান থেকে স্পষ্ট হয় যে পাশ্চাত্যে বস্তু নিষ্ঠ সাংবাদিকতার অস্তিত্ব নেই । আর তা থাকারও কথা না । কারণ পাশ্চাত্যে সকল সংবাদ মাধ্যমই তো ধনী পুঁজিবাদী কর্পোরেট ব্যক্তিত্বদের মালিকানাধীন ।আর বিবিসির বাজেটও আসে ব্রিটেনের রাজপরিবারের কাছ থেকে । তাই দেখা যায় যে বিবিসি সব সময় ব্রিটিশ রাজতন্ত্রের প্রশস্তি গাইতে ব্যস্ত এবং ব্রিটিশ সাম্রাজ্যবাদী স্বার্থ সংরক্ষণ ও সাম্রাজ্যবাদী লক্ষ্য বাস্তবায়নের প্রচারেই সদা লিপ্ত ও সচেষ্ট।)

 

কিন্তু গত ২৫ জানুয়ারি ২০২২ মার্কিন পররাষ্ট্র দফতরের মুখপাত্র নেড প্রাইসের স্পষ্ট এ উক্তি পাশ্চাত্য সংবাদ মাধ্যম সমূহ কর্তৃক ইরান বিরোধী তাবৎ অপপ্রচার ভণ্ডুল করে দিয়েছে । যদিও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বেআইনি ও অমানবিক অবরোধ ও নিষেধাজ্ঞায় ইরান ক্ষতিগ্রস্ত হয়েও নিজ বিপ্লবী লক্ষ্য ও আদর্শ থেকে বিন্দুমাত্র বিচ্যুত হয় নি । বরং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের কঠোর অবরোধ ও নিষেধাজ্ঞা শোচনীয় ভাবে ব্যর্থ করে মহান আল্লাহর অনুগ্রহ ও কৃপায় নিজের পায়ের ওপর দাঁড়িয়ে গেছে এবং শান্তিপূর্ণ পারমাণবিক কর্মসূচিকে সফল করার দিকে অনেক এগিয়ে গেছে যা ঐ মুখপাত্র (নেড প্রাইস) নিজেও স্বীকার করেছেন।

 

আর এখান থেকে প্রমাণিত হয় যে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র সরকার কত খানি বদ ও বীভৎস্য এবং তার চেয়েও বদ হচ্ছে পশ্চিমা কর্পোরেট মিডিয়া ও সংবাদ মাধ্যম সমূহ !! আসলে পাশ্চাত্যের একটি অংশ আরেকটি অংশের চেয়ে বদ এবং ঐটি এটির চেয়েও বদ(তর)!!

 

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র সরকার পশ্চিমা কর্পোরেট মিডিয়া ও সংবাদ মাধ্যম সমূহের চেয়ে নিকৃষ্ট এবং ওগুলো ( পশ্চিমা কর্পোরেট মিডিয়া ও সংবাদ মাধ্যম সমূহ ) মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র সরকারের চেয়ে বদ ও নিকৃষ্ট । আর ঠিক এটাই হচ্ছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র তথা পাশ্চাত্যের প্রকৃত চেহারা ও সুরত।

 

বি: দ্র : প্রেসটিভির রিপোর্টটিতে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দপ্তরের মুখপাত্রের বক্তব্যের ভিডিও ক্লিপটি দেওয়া আছে  যা শোনা ও দেখার অনুরোধ করছি সুপ্রিয় পাঠক মণ্ডলীকে।

ইসলামী চিন্তাবিদ এবং গবেষক হুজ্জাতুল ইসলাম ওলায় মুসলেমিন মুহাম্মদ মুনীর হুসাইন খান

 

নাম:
ই-মেল:
* আপনার মন্তব্য:
* :