IQNA

22:55 - January 20, 2019
সংবাদ: 2607765
ইমাম মাহদীর বিশ্বজনীন হুকুমতের নারীদেরও রয়েছে অতি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা। তারা মহানবীর যুগের ন্যায় ইমাম মাহদীকে যুদ্ধের ময়দানে এবং রাষ্ট্র পরিচালনায় নানাভাবে সহযোগিতা করবেন।

বার্তা সংস্থা ইকনা'র রিপোর্ট: ইমাম মাহদীর(আ.) আবির্ভাবের পূর্বেও একদল নারীরা বলিষ্ঠ ভূমিকা পালন করবেন। তাদের মধ্যে জিহাদের প্রেরণা দারুণভাবে কাজ করবে। তারা সর্বত্র দজ্জালের বিরুদ্ধে কথা বলবেন এবং তার অমানবিক চরিত্রকে সবার সামনে তুলে ধরবেন।

ইমাম বাকের(আ.) বলেছেন: «وَ اللَّهِ ثَلَاثُمِائَةٍ وَ بِضْعَةَ عَشَرَ رَجُلًا فِيهِمْ خَمْسُونَ امْرَأَةً يَجْتَمِعُونَ بِمَكَّةَ عَلَي غَيْرِ مِيعَادٍ قَزَعاً كَقَزَعِ الْخَرِيفِ يَتْبَعُ بَعْضُهُمْ بَعْضاً…؛ ইমাম মাহদী(আ.) যখন আবির্ভূত হবেন তখন তার বিশিষ্ট ৩১৩জন সাথী মক্কায় তার সাথে মিলিত হবেন তার মধ্যে ৫০ জন নারীও থাকবেন।

কিছু হাদিসে বর্ণিত হয়েছে ইমাম মাহদীর(আ.) আবির্ভাবের পর ৪০০ জন নারী তার সাথে থাকবেন এবং তারা বেশিরভাগ স্বাস্থ্য বিভাগে কাজ করবেন। তবে আরও কিছু হাদিসে বর্ণিত হয়েছে ইমাম মাহদীকে যে সকল মহান নারীরা সাহায্য করবেন তাদের সংখ্যা হচ্ছে ৭৮০০জন।

ফিতান গ্রন্থে বর্ণিত হয়েছে: দজ্জালের আবির্ভাবের পর ১২০০০ পুরুষ মু’মিনি এবং ৭৮০০ নারী মোমেনা তার বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াবেন।

রাসূল(সা.) বলেছেন: ঈসা ইবনে মারিয়াম ৮০০জন মুমিন পুরুষ এবং ৪০০ মোমেনা নারীর মধ্যে অবতীর্ণ হবেন। তারা হচ্ছে উম্মতের শ্রেষ্ঠ ও অতি সৎ বান্দা।

ইমাম বাকের(আ.) বলেছেন: যে ৩১৩ জন বিশেষ ব্যক্তি ইমাম মাহদীকে সাহায্য করবেন তার মধ্যে ৫০জন নারীও রয়েছে।

কিছু হাদিসে আবার যে সকল নারীরা ইমাম মাহদীর(সা.) রাষ্ট্রে সহযোগিতা করবেন তাদের নাম বর্ণিত হয়েছে: একটি হাদিসে তাদের কয়েক জনের নাম বর্ণিত হয়েছে: রশিদের কন্যা কানওয়া, উম্মে আইমান, হাবাবা ওয়ালবিয়াহ, আম্মার ইয়াসিরের মা সামিয়াহ, জোবায়দা, উম্মে খালিদ আহসামিয়া, উম্মে সাইদ হানাফিয়াহ, সাব্বানা মাশতা এবং উম্মে খালিদ জাহান্নাম।

এই সকল নারীরা রাসুলের(সা.) যুগের নারীদের ন্যায় যুদ্ধের ময়দানে, পুরুষদের সেবা করবেন। তবে এর পূর্বে তাদেরকে প্রস্তুত হতে হবে যাতে তারা সেই মহান বিপ্লবের সাহায্যকারী হতে পারে।

নাম:
ই-মেল:
* আপনার মন্তব্য:
* captcha: