IQNA

0:26 - November 20, 2019
সংবাদ: 2609666
আন্তর্জাতিক ডেস্ক: নরওয়ের ক্রিস্টিয়ান সান্ড শহরে চরম ডানপন্থী দল বিক্ষোভ প্রদর্শন করে পবিত্র কুরআনের অবমাননা করেছে। তুরস্কের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় নরওয়ের চরম ডানপন্থী দল এই অপকর্মের তীব্র নিন্দা জানিয়েছে।

বার্তা সংস্থা ইকনা’র রিপোর্ট: তুরস্কের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে ঘোষণা করেছে: নরওয়ের ক্রিস্টিয়ান সান্ড শহরের “নরওয়েকে ইসলামিকরণ বন্ধ করো” নামক চরম ডানপন্থী দল পবিত্র কুরআনের অবমাননা করেছে। আমরা তাদের এই অপকর্মের তীব্র নিন্দা জানায়।

বিবৃতিতে তুরস্কের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় আরও ব্যক্তি করেছে: চরম ডানপন্থী দলের এধরণের কার্যক্রমের বিরোধিতা করার প্রয়োজন রয়েছে। এই অপরাধ শুধুমাত্র মুসলমানদের বিরুদ্ধ নয়; বরং তারা সকল মানবতার বিরুদ্ধে কাজ করছে।

এই মন্ত্রণালয় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেছে: ইউরোপের পশ্চিমাঞ্চলের দেশসমূহে মুসলমানেরা বৈষম্যের স্বীকার হচ্ছে এবং ইসলম বিদ্বেষীরা মসজিদ ও মুসলিমদের ওপর হামলা চালাচ্ছে। ইসলাম বিদ্বেষীদের এসকল পদক্ষেপ বন্ধ করার জন্য বিশ্ববাসীর জরুরি পদক্ষেপ গ্রহণ করার প্রয়োজন রয়েছে।

“নরওয়েকে ইসলামিকরণ বন্ধ করো” চরম ডানপন্থী দলের লিডার “অরনী টুমার” ১৬ই নভেম্বর বিক্ষোভ প্রদর্শনের মাধ্যমে পবিত্র কুরআনে আগুন লাগাতে চেয়েছিল। কিন্তু পুলিশ তার এই অপকর্মের বাধা প্রয়োগ করে। তবে সে অন্য পদক্ষেপের মধ্যমে এই পবিত্র গ্রন্থের অবমাননা করে।

নরওয়ের জাতীয় টেলিভিশনের (NRK)  প্রতিবেদন অনুযায়ী, ইসলাম বিদ্বেষী এই দলের সদস্যরা ক্রিস্টিয়ান সান্ড শহরের শরণার্থী শিবিরের নিকটে বিক্ষোভ করেছে।

উল্লেখ্য যে, “অরনী টুমার” বিক্ষোভ প্রদর্শনের মাধ্যমে পবিত্র কুরআনে আগুন লাগাতে চেয়েছিল। কিন্তু পুলিশ তার এই অপকর্মের বাধা প্রয়োগ করে। তবে সে অন্য পদক্ষেপের মধ্যমে অর্থাৎ পবিত্র কুরআনের পাণ্ডুলিপি আবর্জনায় নিক্ষেপ করে এই পবিত্র গ্রন্থের অবমাননা করে।  iqna

নাম:
ই-মেল:
* আপনার মন্তব্য: