IQNA

20:02 - April 03, 2020
সংবাদ: 2610529
তেহরান (ইকনা)- আল-আজহার বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক ইলেক্ট্রনিক ফতোয়া সেন্টার ঘোষণা করেছে: সংক্রামক রোগে আক্রান্ত রোগীদের শরীয়তগত ভাবে কোয়ারেন্টাইন বাধ্যতামূলক। এই ধর্মীয় বাধ্যবাধকতা অস্বীকার করা হারাম এবং ধর্মীয় অপরাধ হিসেবে গণ্য হবে।

আল-আজহার বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক ইলেক্ট্রনিক ফতোয়া সেন্টার ফেসবুকে তাদের নিজস্ব পেজে এক বিবৃতিতে এই তথ্যটি প্রকাশ করেছে। এই পোস্টে আরও উল্লেখ করেছে: কোয়ারেন্টাইন অস্বীকার করা শুধুমাত্র ধর্মীয় অপরাধই নয়, বরং এটি লঙ্ঘনের মাধ্যমে ধর্ম ও জন্মভূমির বিরুদ্ধে সংঘটিত একটি মানবিক অপরাধ বটেও।

ইলেক্ট্রনিক ফতোয়া সেন্টার ঘোষণা করেছে: সংক্রমণ রোগের জন্য সর্বপ্রথম ইসলাম ধর্মে কোয়ারেন্টাইন কার্যকর করা হয়েছে। যাতেকরে মুসলমানেরা ইচ্ছাশক্তির দ্বারা কার্যকরভাবে তাদের দায়িত্ব পালনে সক্ষম হয়।

এই ফতোয়া সেন্টার স্মরণ করিয়ে দিয়েছে যে, নবী করিম (সা.)এর হাদিসে অসুস্থ ব্যক্তিকে সুস্থ লোকেদের সাথে মেলামেশা না করার জন্য নির্দেশ দিয়েছে বলে দেখা যায়। প্রকৃতপক্ষে, মহামারী বিস্তার রোধে একে-অপরের থেকে দূরে থাকার পদ্ধতি হচ্ছে সবচেয়ে উত্তম পদ্ধতি।

আল-আজহার বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক ইলেক্ট্রনিক ফতোয়া সেন্টার আসন্ন রমজান মাসে একজন মুসলমানের রোজা ভাঙার প্রয়োজনীয়তা নিয়ে বিতর্কিত প্রশ্নের উত্তর দিয়েছে।

এব্যাপারে এই সেন্টার বলেছে: মুসলমানদের জন্য চিকিৎসকদের অনুমতি ব্যতীত পবিত্র রমজান মাসে রোজা ভাঙ্গা বৈধ নয়। অথবা যদি বৈজ্ঞানিকভাবে প্রমাণিত হয় যে, যদি কেউ রোজা রাখে তাহলে সে ভাইরাসে আক্রান্ত হবে, যা এখনোও বৈজ্ঞানিকভাবে প্রমাণিত হয়নি। iqna

 

নাম:
ই-মেল:
* আপনার মন্তব্য:
* captcha: