IQNA

5:07 - March 20, 2021
সংবাদ: 2612491
তেহরান (ইকনা): তানজানিয়ার প্রথম হিজাবী নারী প্রেসিডেন্ট দায়িত্ব গ্রহণ করেছেন দেশটির ভাইস-প্রেসিডেন্ট সামিয়া সুলুহু হাসান। শুক্রবার তিনি আনুষ্ঠানিকভাবে শপথ নেন। 

বুধবার দেশটির বৃহত্তম শহর দার এস সালামের একটি হাসপাতালে হার্টের জটিলতায় মৃত্যু হয় প্রেসিডেন্ট জন পোমবে মাগুফুলির। মৃত্যকালে তার বয়স হয়েছিল ৬১ বছর। ২৭ ফেব্রুয়ারি তাকে শেষবারের মতো প্রকাশ্যে দেখা গেলেও প্রেসিডেন্ট ‘শারীরিকভাবে সুস্থ আছেন এবং কঠিন পরিশ্রম করছেন’ বলে গত সপ্তাহে দাবি করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী কাসিম মাজালিওয়া। প্রেসিডেন্টের অসুস্থতার খবরকে ভিত্তিহীন আখ্যা দিয়ে এ ধরনের  গুজব ছড়ানোর জন্য তিনি বিদেশে বসবাসকারী ‘ঘৃণ্য’ তানজানিয়ানদের দায়ী করেছিলেন। বিরোধীদের দাবি ছিল, তিনি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছিলেন।

 

২০১৫ সাল থেকে দেশটির ভাইস প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন সামিয়া।  ৬১ বছর বসয়ী এই নারীকে মানুষ ভালোবেসে মামা সামিয়া নামে ডাকেন। ২০০০ সালে তিনি প্রথম আইনপ্রণেতা হিসেবে নির্বাচিত হন। ২০১৪ সালে সাংবিধানিক পরিষদের ভাইস-চেয়ারপারসন হিসেবে প্রথম আলোচনায় আসেন সামিয়া।

 

ইথিওপিয়ার প্রেসিডেন্ট সাহলি-ওয়ার্ক জাওডির পরে তিনি আফ্রিকার দ্বিতীয় নারী রাষ্ট্রপ্রধান। আধা-স্বায়ত্তশাসিত দ্বীপ জানজাবির থেকে আসা সামিয়া তার ২০ বছরের রাজনৈতিক জীবনে স্থানীয় সরকার থেকে শুরু করে জাতীয় পরিষদের সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

শপথ নেওয়ার পর প্রথম ভাষণে ৬১ বছর বয়সী সামিয়া হাসান প্রয়াত প্রেসিডেন্ট মাগুফুলির মৃত্যুতে ২১ দিনের শোক ঘোষণা করেন। সরকারি ছুটি ঘোষণা করেছেন আগামী ২২ ও ২৫ মার্চ। ওইদিন মাগুফুলির শেষকৃত্য হওয়ার কথা রয়েছে।

দারুস সালামে শপথ অনুষ্ঠানে সামিয়া বলেন, আমি সামিয়া সুলুহু হাসান সততার সঙ্গে তানজানিয়ার সংবিধান রক্ষা ও মেনে চলার অঙ্গীকার ব্যক্ত করছি।

শপথ শেষে তিনি বলেন, আমার রাজনৈতিক জীবনে আমি যত শপথ নিয়েছি সেসবের চেয়ে আজকের এই শপথ ব্যতিক্রম। শোকাবহ এক পরিস্থিতির মধ্য দিয়ে আমি আজ দেশের রাষ্ট্রপ্রধানের দায়িত্ব নিলাম। 

সংবিধান অনুসারে আগামী পাঁচ ব্ছর তিনি এ দায়িত্ব পালন করে যাবেন। iqna

নাম:
ই-মেল:
* আপনার মন্তব্য:
* captcha: