IQNA

0:01 - May 12, 2021
সংবাদ: 2612770
তেহরান (ইকনা): ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহিল উজমা খামেনেয়ী বলেছেন, দখলদার ইহুদিবাদী ইসরাইল শুধু শক্তির ভাষা বোঝে; কাজেই ফিলিস্তিনি জনগণকে শত্রুর মোকাবিলায় নিজেদের প্রতিরোধ ক্ষমতা শক্তিশালী করতে হবে।

 

তিনি মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ইরানের বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের এক ইফতার মাহফিলে ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে দেয়া ভাষণে এ মন্তব্য করেন। সর্বোচ্চ নেতা বলেন, ইহুদিবাদী অপরাধীদেরকে আত্মসমর্পন ও সহিংস আচরণ বন্ধ করতে বাধ্য করার জন্য ফিলিস্তিনি জনগনণকে তাদের প্রতিরোধ শক্তি ও সক্ষমতা বাড়াতে হবে। পার্সটুডে

তিনি বলেন, “বিশ্ববাসীর চোখের সামনে ইহুদিবাদীদের নৃশংস অপরাধযজ্ঞ ও সহিংসতা চলছে, অথচ নিছক নিন্দা জানানো ছাড়া কেউ কিছু করছে না।”

পবিত্র রমজান মাস শুরু হওয়ার পর থেকে ফিলিস্তিনি জনগণের ওপর ইহুদিবাদী ইসরাইলি সেনাদের নৃশংস দমন অভিযান তীব্রতর হয়েছে। জর্দান নদীর পশ্চিম তীরে বিশেষ করে পূর্ব বায়তুল মুকাদ্দাস ও আল-আকসা মসজিদ চত্বরে ইসরাইলি সেনাদের পাশবিক হামলায় শত শত ফিলিস্তিনি হতাহত হয়েছেন। এছাড়া, গত কয়েকদিনে অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকায়ও ইসরাইলি বিমান হামলায় ফিলিস্তিনি জনগণের জানমালের অপূরণীয় ক্ষতি হয়েছে।

এসব ঘটনায় ফিলিস্তিনিদের প্রতি সহমর্মিতা জানানোর পাশাপাশি তাদেরকে দুর্বল ও হীনমন্য হয়ে না থেকে প্রবল শক্তি সঞ্চয় করার আহ্বান জানান আয়াতুল্লাহিল উজমা খামেনেয়ী।

ইসরাইলি পাশবিকতার জবাবে গাজা উপত্যকা থেকে গত দু’দিনে ইসরাইলের রাজধানী তেল আবিবসহ বিভিন্ন লক্ষ্যবস্তুতে ফিলিস্তিনি প্রতিরোধ সংগ্রামীরা রকেট নিক্ষেপ করেছেন। প্রতিশোধমূলক এসব হামলায় ইহুদিবাদীদেরও ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। এখন পর্যন্ত অন্তত তিনজন ইসরাইলি নিহত ও শতাধিক ইহুদিবাদী আহত হয়েছে।

ইরানের সর্বোচ্চ নেতা তার ভাষণের অন্যত্র আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলের একটি গার্লস স্কুলে উগ্র জঙ্গিদের ভয়াবহ বোমা হামলার তীব্র নিন্দা জানান। তিনি বলেন, এ ধরনের পাশিবকতা যারা চালায় তাদের প্রতি রয়েছে ঐশী অভিসম্পাত।

সম্প্রতি কাবুলের গার্লস স্কুলের সামনে ভয়াবহ গাড়িবোমা হামলায় অন্তত ৮৫ জন নিহত ও প্রায় দেড়শ মানুষ আহত হয়। হতাহতদের বেশিরভাগই স্কুলছাত্রী। iqna

নাম:
ই-মেল:
* আপনার মন্তব্য:
* captcha: