IQNA

0:01 - October 20, 2021
সংবাদ: 3470846
তেহরান (ইকনা):খুবই আশ্চর্য জনক ও বিস্ময়কর ব্যাপার হচ্ছে যে , মার্কিন সরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মতে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ৯০./. দাবানল সে দেশটির জনগণের কারণে ঘটে থাকে !! ইচ্ছা প্রণোদিত অগ্নিসংযোগ ( intentional acts of arson ) হচ্ছে এই দাবানলের এক অন্যতম কারণ ।
এ কেমন বুনো দেশ ও অসভ্য জাতি যে নিজেরা ইচ্ছা করে আগুণ লাগিয়ে দেয় বনে জঙ্গলে এবং তার ফলে হাজার হাজার জনগণের ( tens of thousands of common people ) বাড়ীঘর পুড়ে ছাই ভস্ম হয়ে যাচ্ছে । যারা বা যে জাতি  নিজ দেশবাসীর সাথে এ ধরনের ঘৃণ্য জঘন্য ন্যাক্কার জনক আচরণ করতে পারে তারা বিশ্ববাসীর সাথে কিরূপ আচরণ করবে ?!!! 
 
এই হলো মানব জাতির শত্রু অসভ্য বর্বর মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রকৃত স্বরূপ ও চেহারা ।
 
এই অসভ্য বুনো বর্বর জাতির কাছে বিশ্বের সমস্যা বলীর  সমাধান আশা করা যায় ? যারা নিজেরাই সমস্যায় জর্জরিত ও জ্বরাগ্রস্ত তারা কিভাবে পরের সমস্যা সমাধান করবে ?  বরং উল্টে বিশ্বের সমস্যা আরও বাড়িয়েই দিচ্ছে এই বুনো জংলী মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র !!  ফাক্বিদুশ শাইয়ি লা ইউতী ( فاقد الشيء لا يعطي ) অর্থাৎ যার যে জিনিসটা নেই সে তা দিতে পারে না । আর বিশ্ব সমস্যা সমাধানের না সামর্থ্য আছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের না আছে তার সদিচ্ছা ।
 
আসলে মার্কিনরা হচ্ছে বুনো জংলী কাও বয়দের বংশধর । এই কাও বয়রা ছিল ভয়ঙ্কর অস্বাভাবিক ধরনের দাঙ্গাবাজ মারপিট ও খুন খারাবিতে পটু , সিদ্ধহস্ত ও অভ্যস্ত । পুরো ঊনবিংশ শতাব্দী জুড়ে ছিল এদের অসভ্যতার আধিপত্য সমগ্র মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে । 
 
তদানীন্তন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ইউরোপীয় অভিবাসী জনগণের এক বিশাল অংশ বা সিংহভাগই ছিল কাও বয় ( রাখাল ফার্সীতে গভ্ চারন : گاو چران ) । এই সব কাও বয় লুটতরাজ  মারামারি খুনাখুনি ও দস্যুতা করেই জীবিকা নির্বাহ করত । এরা এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সেনাবাহিনী আমেরিকার আদিবাসীদের ( রেড ইন্ডিয়ান জনগোষ্ঠী ) নির্বিচারে গণহত্যা চালিয়েছে ও তাদেরকে মেরে কেটে শেষ ও নিশ্চিহ্ন করে দিয়েছে ।

ইসলামী চিন্তাবিদ এবং গবেষক হুজ্জাতুল ইসলাম ওলায় মুসলেমিন মুহাম্মদ মুনীর হুসাইন খান

 

নাম:
ই-মেল:
* আপনার মন্তব্য:
* captcha: