IQNA

শোকাবহ আশুরা

19:37 - August 09, 2022
সংবাদ: 3472259
তেহরান (ইকনা):  আজ ১০ মুহররম আশুরার দিবস হযরত রাসূলুল্লাহর ( সা :) দৌহিত্র হযরত আমীরুল মুমিনীন ইমাম আলী ইবনে আবী তালিব ( আ:) ও বেহেশতের নারীদের নেত্রী হযরত ফাতিমা যাহরার (আ:) সন্তান বেহেশতের যুবকদের নেতা ইমাম হুসাইনের (আ:) শাহাদাতের দিবস ।

এ দিন অর্থাৎ ৬১ হিজরীর ১০ মুহররম তাঁকে ৭২ জন সঙ্গী সাথী সহ কারবালায় অত্যন্ত নিষ্ঠুর ভাবে

শহীদ করে পাপিষ্ঠ কাফির ইয়াযীদ ইবনে মুয়াবিয়ার সেনাবাহিনী । মযলূম ইমামের এবং তাঁর সকল শহীদ সঙ্গীসাথীদের মাথা কর্তন করে তাঁদের পবিত্র দেহের উপর অশ্ব চালিয়ে সেগুলো পিষ্ট ও পদদলিত করে ঐ পাপিষ্ঠ নরকের কীট ইয়াযীদীরা । আজ মহানবী ( সা:) , তাঁর পবিত্র আহলুল বাইত (আ:) এবং মুসলমানদের মুসীবৎ , শোক ও মাতমের দিন । হযরত জিবরাঈল ( আ :) একদল পাপিষ্ঠ পথভ্রষ্ট নরাধম উম্মতের হাতে কারবালায় ইমাম হুসাইনের শাহাদাতের সংবাদ দিলে রাসূলুল্লাহ ( সা:) , হযরত আলী (আ:) ও হযরত ফাতিমা যাহরা ( আ:) কেঁদেছিলেন ; শুধু তাই নয় শাহাদাতের দিন ( ৬১ হিজরীর ১০ মুহররম ) যে সময় ইমাম হুসাইনকে ( আ:) শহীদ করা হচ্ছিল ঠিক সেই মুহূর্তে স্বয়ং রাসূলুল্লাহ (সা:) নিজে কারবালায় উপস্থিত ছিলেন ; তাঁর চুল ও দাড়ি মুবারক ছিল এলোমেলো ও ধূলাবালি মাখানো এবং একটি কাঁচের শিশিতে ( ক্বারূরাহ ) নিজ হাতে ইমাম হুসাইন ( আ:) ও তাঁর সঙ্গী সাথীদের রক্ত সংগ্রহ করেছেন আল্লাহ পাকের দরবারে ঐ সব জঘন্য পাপিষ্ঠ কাতিল ও ঘাতকদের বিরুদ্ধে অভিযোগ পেশ করার জন্য ।

সহীহ তিরমিযী , তাহযীবুত তাহযীব  ও উসদুল গাবায় সালমা থেকে বর্ণিত : তিনি ( সালমা ) বলেন : আমি হযরত উম্মে সালামার (নবীপত্নি উম্মুল মু'মিনীন) ( রা:) কাছে প্রবেশ করি ঐ অবস্থায় যে তখন তিনি কাঁদছিলেন । আমি তাঁকে জিজ্ঞেস করলাম : আপনি কী কারণে কাঁদছেন ? তখন তিনি বললেন : আমি  ( স্বপ্নে ) মহানবীকে ( সা :) তাঁর মাথায় ও দাঁড়িতে মাটি মাখা অবস্থায় দেখে তাঁকে জিজ্ঞেস করলাম : " হে রাসূলুল্লাহ , আপনার এ অবস্থা কেন ? " তিনি ( সা:) বললেন : " আমি এই কিছু ক্ষণ আগে হুসাইনের শাহাদাত বরণ  প্রত্যক্ষ করেছি ।"

  হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে আব্বাস থেকে বর্ণিত : তিনি বলেন : আমি দিনের বেলায় স্বপ্নে মহানবীকে ( সা:) দেখলাম যে তাঁর চুল ও দাড়ি মুবারক এলোমেলো ও ধূলাবালি মাখানো এবং তাঁর হাতে রয়েছে রক্ত দিয়ে

পূর্ণ একটি কাঁচের শিশি । আমি তাঁকে বললাম :  " হে রাসূলুল্লাহ , আপনার জন্য আমার পিতা মাতা উৎসর্গ হোক ; এটা কী ? " তিনি বললেন : এটা হুসাইন ও তাঁর সঙ্গী সাথীদের রক্ত । আজ থেকে আমি এই রক্ত সংগ্রহ করেই যাচ্ছি । " অত:পর ইবনে আব্বাস ( রা :) দিনটা হিসাব করে দেখলেন যে ঐ দিনই তিনি ( হুসাইন ) শহীদ হয়েছেন । ( দ্র : তাহযীবুত তাহযীব , 

আল - ইস্তিআব , উসদুল গাবাহ , আল বিদিয়াহ ওয়ান নিহায়াহ , তারীখুল খামীস )

 

মহান আল্লাহর অভিশাপ ( লানত ) ইমাম হুসাইনের (আ:) ঘাতক ও তাঁর শহীদ সঙ্গীসাথীদের  হত্যাকারীদের উপর ।

 

اَللّٰهُمَّ الْعَنْ قَتَلَةَ الْحُسَيْنِ عَلَيْهِ السَّلَامُ

( আল্লাহুম্মাল্'আন্ ক্বাতালাল হুসাইন আলাইহিস সালাম )।

 

হে আল্লাহ পাক , ইমাম হুসাইনের ( আ:) ঘাতক হত্যাকরীদেরকে আপনার রহমত থেকে দূর করে দিন ।

 

আল্লাহ পাক আমাদেরকে হযরত ইমাম হুসাইনের ( আ:) জন্য কান্নাকাটি , মাতম ও শোক প্রকাশের পূণ্য ও সওয়াব দান করুন এবং আমাদেরকে ও আপনাদের সবাইকে  আল - ই মুহাম্মাদের ( সা:) (( অর্থাৎ মহানবীর ( সা:) আহলুল বাইত )) অন্তর্ভুক্ত  তাঁর ওয়ালী ইমাম মাহদীর ( আ:) সাথে তাঁর পবিত্র রক্তের প্রতিশোধ গ্রহণকারীদের অন্তর্ভুক্ত করে দিন ।

 

أَعْظَمَ اللّٰهُ أُجُوْرَنَا بِمُصَابِنَا بِالْحُسَيْنِ عَلَيْهِ السَّلَامُ وَ جَعَلَنَا وَ إِيَّاکُمْ مِنَ الطَّالِبِيْنَ بِثَارِهِ مَعَ وَلِيِّهِ الْإِمَامِ الْمَهْدِيِّ مِنْ آلِ مُحَمَّدٍ عَلَيْهِمُ السَّلَامُ .

 

ইয়া লাসারাতিল হুসাইন ( আ:)

يَا لَثَارَاتِ الْحُسَيْنِ .

 

হে হুসাইনের রক্তের প্রতিশোধ গ্রহণ কারীরা ( মযলূম ইমাম হুসাইনের রক্তের প্রতিশোধ নেয়ার জন্য জালিম ঘাতকদের বিরুদ্ধে উঠে রুখে দাঁড়াও ) ।

 

এই শ্লোগান হবে ইমাম মাহদী ( আ:) এবং তাঁর অনুসারীদের জনপ্রিয় বিপ্লবী শ্লোগান । কারণ অন্যায় ও তাগূতের বিরুদ্ধে কারবালায় সাইয়েদুশ শুহাদা ( শহীদদের নেতা ) ইমাম হুসাইনের ( আ:) ক্বিয়াম , আন্দোলন ও শাহাদাত আসলে  আখেরুয যামানে ( শেষ যুগে অর্থাৎ কিয়ামতের আগে) ইমাম মাহদীর ( আ:) সত্য ও ন্যায় প্রতিষ্ঠার বিপ্লব ও সংগ্রামের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করে ।

তাই আশুরা হচ্ছে সকল অন্যায় , মিথ্যা ও তাগূতের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ সংগ্রামের মুর্ত্য প্রতীক ।

আশুরা দেয় পুন:জাগরণের সুসংবাদ । আশুরা তরবারির উপর রক্তের বিজয় । আশুরা শাহাদাতের মাধ্যমে অনন্ত জীবনে উত্তরণের সোপান ।

আশুরা দেয় শোষণহীন ও অন্যায় মুক্ত উন্নত সমৃদ্ধ ন্যায় ভিত্তিক মানব জীবনের প্রতিশ্রুতি ।

   তাই আজ আমাদের উচিত ইমাম

হুসাইনের ( আ:) সুমহান আদর্শ ও কিয়াম থেকে সঠিক শিক্ষা নেয়া ।

 

ইসলামী চিন্তাবিদ এবং গবেষক হুজ্জাতুল ইসলাম ওলায় মুসলিমিন মুহাম্মদ মুনীর হুসাইন খান

নাম:
ই-মেল:
* আপনার মন্তব্য:
captcha