IQNA

12:45 - July 21, 2017
সংবাদ: 2603473
রাসূলের (সা.) আহলে বাইতের (আ.) অন্যতম মহা পুরুষ শেষ জামানার মুসলমানদের জন্য দোয়া করেছেন; যাতে তারা বিপথগামীতার শিকার না হয়। হাদীসে বর্ণিত হয়েছে যে, শেষ জামানায় পৃথিবীর পরিবেশ এতই খারাপ হবে যে, সকালে কোন ব্যক্তি ঈমানের সাথে ঘর থেকে বের হবে; কিন্তু বিকালে ঈমানহীন অবস্থাতে বাড়ী ফিরবে। কাজেই এমনই এক ভয়ানক যুগে আমরা বসবাস করছি।

শাবিস্তানের উদ্ধৃতি দিয়ে বার্তা সংস্থা ইকনা'র রিপোর্ট: প্রকৃত বসন্তের প্রতীক্ষা তিনটি অবস্থার সাথে সম্পৃক্ত; যথা: ১- চলমান অবস্থার প্রতি অখুশি থাকা, ২- উত্তম অবস্থায় উন্নীত হওয়ার প্রত্যাশা এবং ৩- চলমান প্রতিকুল অবস্থা থেকে অনুকূল ও উত্তম অবস্থার দিকে অগ্রসর হওয়া।

এ তিনটি অবস্থার প্রতি দৃষ্টি রেখে আমরা যদি প্রকৃত বসন্তের দিকে অগ্রসর হই, তাহলে দেখেতে পাব যে, ইমাম মাহদীর (আ.) আবির্ভাবের প্রতীক্ষায় প্রতীক্ষিত কোন মানুষ ঝড়-তুফান ও হতাশার সাগর পেরিয়ে সোনালী ভবিষ্যতের দিকে অগ্রসরমান। হাদীসে বর্ণিত হয়েছে যে, ইমাম জাফর সাদীক (আ.) শেষ জামানার ফিতনা-ফ্যাসাদ থেকে আমরা যাতে নিরাপদ থাকতে পারি, সে জন্য দোয়া ও প্রার্থনা করেছেন। কেননা শেষ জামানার ফিতনা-ফ্যাসাদ হবে অত্যন্ত ভয়ানক ও বিপদজনক। খুব কমই মানুষ এ ফিতনা-ফ্যাসাদ থেকে মুক্ত থাকতে পারবে।

বিভিন্ন ও হাদীস ও রেওয়ায়েতে বর্ণিত হয়েছে: শেষ জামানায় পৃথিবীর পরিবেশ এতই খারাপ হবে যে, সকালে কোন ব্যক্তি ঈমানের সাথে ঘর থেকে বের হবে; কিন্তু বিকালে ঈমানহীন অবস্থাতে বাড়ী ফিরবে। অর্থাৎ শেষ জামানায় আমাদের চারিপাশের পরিবেশ এমন বিপদজনক হবে। সুতরাং এমনই এক ভয়ানক যুগে আমরা বসবাস করছি; কাজেই আমাদের উচিত সব সময় আল্লাহর সাহায্য প্রার্থনা করা যাতে বিপথগামীতার শিকার না হই।
নাম:
ই-মেল:
* আপনার মন্তব্য:
* captcha: