IQNA

কুরআন তিলাওয়াত একটি অনন্য শিল্প/৮

মোস্তফা ইসমাইল কুরআন তিলিাওয়াতের প্রকৌশলী

10:46 - November 13, 2022
সংবাদ: 3472816
তেহরান (ইকনা): মোস্তফা ইসমাইলকে আকবরুল ক্বারা (সর্বশ্রেষ্ঠ ক্বারি) বলা হয়, কারণ তিনি তিলাওয়াতের বিষয়ে এবং ক্বারিদের শৈলীতে অনেক প্রভাব রেখে গেছেন।


এই প্রভাব এতটাই বেড়েছে যে বছরের পর বছর অতিবাহিত হওয়ার পর, তার তিলাওয়াত এবং তার শৈলী অনেক কুরআন বন্ধু এবং তিলাওয়াতকারীদের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছে।
মোস্তফা ইসমাইল সম্পর্কে বলা উচিত যে তিনি আল-আজহার শাইখদের একজনের সাথে কুরআন তাফসিরের দুটি কোর্স করেছেন এবং আয়াতের তাফসিরের এই দক্ষতার প্রভাব তাঁর তেলাওয়াতগুলিতে স্পষ্টভাবে ফুটে ওঠে। তার তিলাওয়াতকে শুধুমাত্র অর্থমুখী হিসেবে বিবেচনা করা ঠিক নয়, বরং তার তিলাওয়াতসমূহ অর্থমুখী এবং এই তাফসিরমূলক তিলাওয়াত বলা উচিত। মিশরের এই বিখ্যাত ক্বারি কুরআনের তাফসির করেন এবং তিলাওয়াতের মাধ্যমে তিনি শ্রোতাদের অবাক করেন।
মিশরীয় গবেষকদের একজন তার বইয়ে প্রমাণ করেছেন যে মোস্তফা ইসমাইল ৫২ হাজার ঘণ্টা কোরআন তিলাওয়াত করেছেন। মোস্তফা ইসমাইল কুরআনের কিছু সূরা বহুবার তিলাওয়াত করেছেন। উদাহরণ স্বরূপ, তিনি সূরা তাহরীম সত্তর বার তিলাওয়াত করেছেন এবং লক্ষণীয় যে এই তিলাওয়াতের কোনটিই এক নয়, তবে এই সমস্ত তিলাওয়াতের সাধারণ চেতনা একই।
তাই প্রতিটি সূরা তিলাওয়াতের ক্ষেত্রে মুস্তফা ইসমাইল নিজস্ব কৌশল ব্যবহার করতেন। অনেক মিশরীয় ক্বারির তিলাওয়াত ক্লিচেড হওয়া সত্ত্বেও এবং আপনি যদি তাদের কাছ থেকে পঞ্চাশটি তিলাওয়াত শুনতে পান তবে সেগুলি একই মডেলে তিলাওয়াত করা হয়েছ। কিন্তু মোস্তফা ইসমাইল সেরকম নয়।
শিক্ষক যত বেশি বয়স্ক, তত বেশি পরিণত। মোস্তফার দোয়াসমূহের মধ্যে একটি ছিল যে, মহান আল্লাহ কখনোই যেন তার থেকে কুরআন তিলাওয়াত পৃথক না করেন। জীবনের শেষ দিনে তিনি সূরা আল কাহফ তিলাওয়াত করেন এবং তারপর বাড়িতে এসে ইন্তেকাল করেন। অর্থাৎ জীবনের শেষ দিন পর্যন্ত তিলাওয়াত করেছেন।
মুস্তাফার বয়স যখন প্রায় বিশ বছর, তিনি একটি মজলিসে কুরআন তিলাওয়াত করছিলেন, মিশরের অন্যতম সেরা সংগীতজ্ঞ দারভিশ হারিরি মুস্তফাকে বলেছিলেন: আপনি এই সুর কিভাবে শিখলেন? জবাবে মোস্তফা বলেন: আমার শোনা সব সঙ্গীত মনে রাখার চেষ্টা করেছি এবং সেগুলো থেকে আমার স্টাইল মনোনীত করেছি। তারপর দরবেশ হারিরি বলেছেন: কোনো সুরকার কাউকে এভাবে লালন করতে পারে না। আসলে তিনি মোস্তফার প্রতিভা তুলে ধরতে চেয়েছিলেন।
আমাদের অবশ্যই লক্ষ্য রাখতে হবে যে মোস্তফার জীবনের প্রতিটি দশকে বিশেষ অবস্থা ছিল। তার জীবনের শেষ দশকটিও একটি অদ্ভুত সময় এবং একজন বিস্মিত হয় যে মোস্তফা, সত্তর বছর বয়সে আবুল আলা মসজিদে এক ঘণ্টা ৫৬ মিনিট ধরে সূরা হুজরাত-কাফ তিলাওয়াত করেছেন। এই তেলাওয়াত বিশ্বের কুরআন পাঠের ইতিহাসে একটি অতুলনীয় মাস্টারপিস।
শীর্ষস্থানীয় ক্বারি এবং শিক্ষক মাহমুদ আমিনীর বক্তৃতা থেকে সংগৃহীত

নাম:
ই-মেল:
* আপনার মন্তব্য:
captcha