IQNA

14:56 - October 03, 2021
সংবাদ: 3470763
তেহরান (ইকনা): শুক্রবার তুর্কি টিআরটি ওয়ার্ল্ড নিউজ চ্যানেলকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান তালেবানের সঙ্গে আনুষ্ঠানিক শান্তি আলোচনা পুনরায় শুরু করার ঘোষণা দিয়েছেন।
তুরস্কের রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী বলেছিলেন যে, তিনি বিশ্বাস করেন পাকিস্তানি তালেবান আন্দোলনে এমন কিছু দল আছে যারা সরকারের সঙ্গে শান্তি ও পুনর্মিলন আলোচনার জন্য প্রস্তুত এবং বর্তমানে আমরা সেসকল গোষ্ঠীর সঙ্গে আলোচনা করছি।
 
পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানে বলেছেন, আমেরিকা আজ হোক কিংবা কাল আফগানিস্তানের তালেবান সরকারকে স্বীকৃতি দিতে বাধ্য হবে। তিনি আরো বলেছেন, আমেরিকার সিনেটে তালেবানকে নিয়ে যা হচ্ছে কিংবা দেশটির গণমাধ্যমে যা কিছু প্রকাশিত হচ্ছে তা থেকে বোঝা যায়, আমেরিকা আফগানিস্তান নিয়ে চরম হতাশায় রয়েছে ও দোটানায় ভুগছে।
 
ইমরান খান শুক্রবার তুরস্কের টিআরটি ওয়ার্ল্ড নিউজ চ্যানেলকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে এ মন্তব্য করেন। তিনি বলেন, আফগানিস্তানকে পরিত্যাগ করলে দেশটিতে ভয়াবহ মানবিক বিপর্যয় দেখা দেবে; কারণ দেশটির সরকারের শতকরা ৭৫ ভাগ বাজেট বিদেশি সাহায্যের ওপর নির্ভরশীল।
 
পাক প্রধানমন্ত্রী বলেন, তালেবান হয়তো দীর্ঘমেয়াদী নিজের পায়ে দাঁড়াতে সক্ষম হবে কিন্তু আপাতত দেশটির বিদেশি সাহায্য প্রয়োজন। এই মুহূর্তে আফগানিস্তানের নয়া সরকারের হাতে সাহায্য না পৌঁছালে এটির পতন ঘটতে পারে এবং সেক্ষেত্রে দেশটিতে চরম বিশৃঙ্খলা ও মানবিক বিপর্যয় দেখা দেবে।
 
পাকিস্তান এখনই তালেবান সরকারকে স্বীকৃতি দেবে কিনা- এমন প্রশ্নের উত্তরে ইমরান খান বলেন, শুধুমাত্র পাকিস্তানের স্বীকৃতি যথেষ্ট নয়। এ কারণে ইসলামাবাদ আফগানিস্তানের সকল প্রতিবেশী দেশের সঙ্গে আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছে যাতে তালেবান সরকারকে স্বীকৃতি দেয়ার জন্য একটি সময়সীমা নির্ধারণ করা যায়।
 
উল্লেখ্য যে, পাকিস্তান যুক্তরাষ্ট্রকে তার সামরিক গোয়েন্দা সেবার মাধ্যমে আফগান তালেবানকে সমর্থন করার অভিযোগ করেছে। এখনও পর্যন্ত মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র কাবুলের নতুন শাসককে স্বীকৃতি দেয়নি। অথচ এই দেশ বিশ্বের তিন দেশের মধ্যে রয়েছে যারা এই গ্রুপের ক্ষমতা থাকার সময় অর্থাৎ ১৯৯৬ থেকে ২০০১ সালে তালেবান শাসনকে স্বীকৃতি দিয়েছিল। 
 
এদিকে মার্কিন উপ -পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়েন্ডি শেরম্যান পাকিস্তান সরকারের কর্মকর্তাদের সঙ্গে এ ব্যাপারে আলোচনার জন্য বৃহস্পতিবার ও শুক্রবার পাকিস্তান ভ্রমণের কথা রয়েছে। iqna
 
 
 
 
 
নাম:
ই-মেল:
* আপনার মন্তব্য:
* captcha: