IQNA

কুরআন কি বলে/৭

মুসলমানদের উপর অন্যদের আধিপত্য সম্পর্কে কুরানের দৃষ্টিভঙ্গি

16:02 - June 15, 2022
সংবাদ: 3471995
তেহরান (ইকনা): বর্তমানে, ইসলামী সমাজের একটি বড় সমস্যা হল মুসলিমদের উপর অমুসলিমদের শক্তির আধিপত্য, যা কখনও কখনও ইসলামী বিধি-বিধান বাস্তবায়নে এমনকি ইবাদতের ক্ষেত্রেও বিধিনিষেধ ও নিষেধাজ্ঞার দিকে নিয়ে যায়। কিন্তু কুরআন এ সম্পর্কে কি বলে?

ইসলাম ধর্ম অন্যান্য ধর্মের অনুসারীদের সম্মান করে, কিন্তু তা সত্ত্বেও অন্যান্য ধর্মের অনুসারীদের সাথে মুসলমানদের ঘনিষ্ঠ ও মানসিক সম্পর্ককে বিশ্বাস ও তাকওয়ার অক্ষে সীমাবদ্ধ করে। পবিত্র কুরআনে এমন অনেক আয়াত রয়েছে যা মুসলমানদের অন্য ধর্মের অনুসারীদের পৃষ্ঠপোষকতা গ্রহণ করতে নিষেধ করা হয়েছে।
আল্লাহ মুসলমানদেরকে অর্থনৈতিক, সাংস্কৃতিক ও রাজনৈতিক সহ জীবনের সর্বক্ষেত্রে তাদের মর্যাদা ও স্বাধীনতা বজায় রাখার জন্য এবং ইসলামের শত্রুদের সাথে বন্ধুত্ব করে এই মর্যাদা ও স্বাধীনতার সন্ধান না করার জন্য সতর্ক করেছেন। বরং তাদের সকল ক্ষেত্রে আল্লাহর উপর নির্ভর করা উচিত, যা সকল সম্মানের উৎস। যে আয়াতগুলো এই বিষয়টিকে নির্দেশ করে তার মধ্যে একটি আয়াত হিসেবে পরিচিত "নাফিয়ে সাবিল" যার অর্থ পথ নিষিদ্ধ করা। “নাফিয়ে সাবিল” একটি ইসলামী নিয়ম যা রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক, অর্থনৈতিক এবং সামরিক সহ যে কোন ক্ষেত্রে মুসলমানদের উপর কাফেরদের আধিপত্য অনুমোদন করে না।

وَلَنْ يَجْعَلَ اللَّهُ لِلْكَافِرِينَ عَلَى الْمُؤْمِنِينَ سَبِيلًا


এবং আল্লাহ অবিশ্বাসীদের জন্য বিশ্বাসীদের ওপর (আধিপত্যের) কোন পথ দেন না।
সূরা নিসা, আয়াত: ১৪১।
«و لن یجعل الله الکافرین علی المومنین سبیلا» এই আয়াতের শেষে “নাফিয়ে সাবিলের” নিয়ম হিসাবে ব্যবহৃত হয়েছে। বিভিন্ন আইনশাস্ত্রে ফকীহগণ, মুমিনদের উপর কাফেরদের আধিপত্যের অভাব প্রমাণ করার জন্য, "لَن يَجْعَلَ اللّهُ" বাক্যটি উদ্ধৃত করেছেন। অবশ্য ভ্রমণ ও তথ্য, শিক্ষা, সাংস্কৃতিক ও অর্থনৈতিক আদান-প্রদানে কোনো সমস্যা নেই, যদি তা কাফেরদের আধিপত্য ও মুমিনদের অপদস্থের কারণ না হয়। কেননা হুজুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম-এর একটি হাদীসে এর উল্লেখ রয়েছে:


«اطلبوا العلم ولو بالصين».


জ্ঞান অর্জনের জন্য প্রয়োজনে সুদূর চীন দেশে যাও।
ওসায়েলুশ শিয়া, ২৭তম খণ্ড, পৃ: ২৭।
নবী করিম ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম-এর এই হাদীসে চীনের রেফারেন্সটি দূরত্ব এবং সাংস্কৃতিক পার্থক্যের একটি রূপক। আয়াতুল্লাহ মোহসেন ক্বারায়াতী তাফসিরে নূরে এই হাদীসের ব্যাখ্যা দিয়ে বলেছেন: পবিত্র কুরআনে ‘ফাতহ’ শব্দ দিয়ে মুসলমানদের বিজয় এবং ‘নাসিব’ শব্দ দিয়ে কাফেরদের বিজয়ের কথা বলা হয়েছে। সম্ভবত এটা বোঝার জন্য যে কাফেরদের সমৃদ্ধি ক্ষণস্থায়ী এবং চূড়ান্ত পর্যায়ের কল্যাণ এবং বিজয় একমাত্র আল্লাহর জন্য।

নাম:
ই-মেল:
* আপনার মন্তব্য:
* :