IQNA

কুরআনের সূরাসমূহ/১৩

রা’দ; মহান আল্লাহর জান্নতী প্রশংসা

19:19 - June 26, 2022
সংবাদ: 3472047
তেহরান (ইকনা): আকাশে বজ্রের গর্জন আল্লাহর মহান নিদর্শনগুলির মধ্যে একটি, যা সূরা রা’দের ১৩ নম্বর আয়াত অনুসারে, এই গর্জন হল সর্বশক্তিমান আল্লাহর প্রশংসায় ও কৃতজ্ঞতায় গর্জিত হয়।
সূরা রা’দ পবিত্র কুরআনের ১৩তম সূরা। ১৩ পারায় অবস্থিত এই সূরায় মোট ৪৩টি আয়াত রয়েছে। এই সূরাটি মাক্কি সূরা না কি মাদানী সূরা সেসম্পর্কে মতপার্থক্য রয়েছে। কেউ কেউ এই সূরার বিষয়বস্তুর কারণে সূরাটিকে মাক্কী সূরা হিসেবে গণ্য করেন এবং কেউ কেউ নাযিলের ক্রমানুশরের কথা বিবেচনা করে এটিকে মাদানী সূরা হিসেবে মনে করেন। নাযিলের ক্রমানুশরে এই সূরাটি ৯৬তম সূরা যা নবী (সা.) এর উপর অবতীর্ণ হয়েছে। 
সূরাটির নামটি বজ্রের ঘটনাকে বোঝায় যার অর্থ আকাশের গর্জন, যাকে ঐশ্বরিক গৌরব হিসাবে উল্লেখ করা হয়। সূরা রা’দ-এর ১৩ নং আয়াতে এই বিষয়টি উল্লেখ করা হয়েছে: 
وَيُسَبِّحُ الرَّعْدُ بِحَمْدِهِ وَالْمَلَائِكَةُ مِنْ خِيفَتِهِ
বজ্রধ্বনি তাঁর প্রশংসায় এবং ফেরেশতাকুল তাঁর ভয়ে মহিমা ও পবিত্রতা বর্ণনা করে।
সূরা রা’দ, আয়াত: ১৩। 
মুফাস্সিরগণ এই আয়াতের বেশ কিছু ব্যাখ্যা দিয়েছেন; কেউ কেউ বলেছেন যে বজ্র একটি ঐশ্বরিক চিহ্ন এবং মহান আল্লাহের মহত্ত্বের একটি চিহ্ন, তাই আমাদেরকে আল্লাহর গৌরব বা স্বয়ং আল্লাহকে মহিমান্বিত করার জন্য আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। আবার কোন কোন তাফসীরে বলা হয়েছে যে, বজ্রের মহিমান্বিত অর্থ হচ্ছে, যে বজ্রধ্বনি শোনে সে আল্লাহর মহিমা ঘোষণা করে। কিছু দোয়াও আছে যেগুলো বজ্রধ্বনি শুনে পাঠ করা হয়।
এই সূরায় আল্লাহর একেশ্বরবাদ এবং ক্ষমতা, কুরআনের বৈধতা এবং ইসলামের নবীর নবুওয়াত, পুনরুত্থান এবং জান্নাত ও জাহান্নামের বর্ণনা সম্পর্কেও কথা বলা হয়েছে। 
সূরা রা'দ কাফেরদের জবাবে নাজিল হয়েছে, যারা কুরআনকে নিদর্শন এবং অলৌকিকতা হিসাবে গ্রহণ করেনি এবং ইসলামের নবী (সা.)-এর কাছে নিদর্শন এবং একটি অলৌকিকতার প্রমাণ চেয়েছিল, তাদের জন্য নাযিল হয়েছে।
সর্বশক্তিমান আল্লাহ এই সূরায় জোর দিয়েছেন যে, অবতীর্ণ কুরআন সত্য। এটি এমন সত্য যা মিথ্যার সাথে মিশ্রিত নয়।
মানুষ ও মানব সমাজের জন্য পবিত্র কুরআনের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ অনুস্মারক এই সূরাটিতে রয়েছে। যেমনটি সূরা রা’দ-এর ১১ নম্বর আয়াতে উল্লেখ করা হয়েছে:
...إِنَّ اللَّهَ لَا يُغَيِّرُ مَا بِقَوْمٍ حَتَّى يُغَيِّرُوا مَا بِأَنْفُسِهِمْ...
 
… আল্লাহ কোন সম্প্রদায়ের অবস্থা পরিবর্তন করেন না যতক্ষণ না তারা নিজ অবস্থা নিজে পরিবর্তন করে …
সূরা রা’দ, আয়াত: ১১। 
 
সংশ্লিষ্ট খবর
নাম:
ই-মেল:
* আপনার মন্তব্য:
* :