IQNA

কুরআনের সূরাসমূহ/১৪

সুরা ইব্রাহিম; ঐশী নবীগণের উদ্দেশ্য অভিন্ন

13:22 - July 01, 2022
সংবাদ: 3472067
তেহরান (ইকনা): সূরা ইব্রাহীমে, নবীদের মিশনের বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে আলোচনা করা হয়েছে এবং আয়াতগুলি এমনভাবে ব্যক্ত হয়েছে যাতে কোনও নির্দিষ্ট নবী বা গোত্রের কথা বলা হয়নি; তাই বলা যায় যে, সকল নবী একই পথের পথিক ছিলেন এবং তাদের প্রচেষ্টা ছিল অভিন্ন পরিকল্পনার মাধ্যমে মানুষকে পথ দেখানো।
পবিত্র কুরআনের ১৪তম সূরার নামকরণ করা হয়েছে ইব্রাহিমের (আ.) নামে। এই সূরায় মোট ৫২টি আয়াত রয়েছে এবং এটি পবিত্র কুরআনের ১৩তম পারার রয়েছে। মাক্কী সূরার অন্তর্ভুক্ত এই সূরাটি নাযিলের ক্রমানুসারে ৭২তম সূরা যা প্রিয় নবী হযরত মুহাম্মাদ (সা.)-এর উপর অবতীর্ণ হয়েছে। 
হযরত ইব্রাহিমের (আ.) নামে এই সূরাটির নামকরণের কারণ হল ইব্রাহিম নবীর ঘটনা বলা। যে কেউ পবিত্র কুরআনের মাধ্যমে হযরত ইব্রাহিম (আ.)কে জানতে চায়, এই সূরাটি তিলাওয়াত করলে তিনি হযরত ইব্রাহিম (আ.) সম্পর্কে জানতে পারবেন। 
 
এই সূরাটি শুধুমাত্র হযরত ইব্রাহিম (আ.)-এর নামে নামকরণ করা হয়েছে এবং এই নবীকে তাঁর দোয়াসমূহের সাথে পরিচয় করিয়ে দেওয়া হয়েছে। পবিত্র কুরআনের সূরাগুলির মধ্যে এটিই একমাত্র সূরা যেখানে ইব্রাহিমের (আ.) স্মরণে তাঁর দোয়াসমূহ উল্লেখ রয়েছে, যা পবিত্র কুরআনের বিশেষ দোয়াসমূহ হিসাবে বিবেচিত।
সূরা ইব্রাহিমের সকল আয়াত জ্ঞানতাত্ত্বিক, অন্তর্দৃষ্টিপূর্ণ এবং আদর্শগত ভিত্তি দ্বারা গঠিত এবং মুমিনদের জন্য একমাত্র বাস্তব নির্দেশ হল প্রকাশ্যে এবং গোপনে দোয়া এবং দান করা।
সূরা ইব্রাহিমের মূল বিষয় হল একেশ্বরবাদ, কিয়ামতের বর্ণনা করা এবং মানুষের কাজের হিসাব করা। আল্লামা তাবাতাবায়ী সূরার মূল অক্ষকে কুরআনের বর্ণনা বলে মনে করেন, কারণ এটি নবীর মিশনের একটি নিদর্শন এবং এই মিশনের মূল উদ্দেশ্য হল মানব জাতিকে অন্ধকার থেকে আলোর দিকে এবং সর্বশক্তিমান ও মহিমান্বিত আল্লাহর পথে পরিচালিত করা।
এছাড়াও, যেহেতু মহান আল্লাহ সকলের উপর নেয়ামত দানকারী, তাই তাদের উচিত খুশির জন্য তাঁর আমন্ত্রণ গ্রহণ করা এবং তাঁর আযাবকে ভয় করা।
এই সূরার আরেকটি অক্ষ হল ঐশ্বরিক বার্তাবাহকদের মিশন অর্থাৎ রাসূলগণের মিশন, যার অনুসারে সমস্ত নবী একই লক্ষ্য অনুসরণ করেছেন। কোনো নির্দিষ্ট নবীর কথা উল্লেখ না করেই সূরার উল্লেখযোগ্য অংশে তাদের বিরোধীদের সাথে রাসূলদের কথোপকথন এবং মুখোমুখি অবস্থান উপস্থাপন করেছে। ঐশী রসূলদের সাধারণ নীতি ও অবস্থান এবং তাদের অস্বীকারকারীদের প্রতিক্রিয়া এই সূরায় সংক্ষিপ্ত ভাবে আলোচনা করা হয়েছে।
এই সূরাতে, আলো ও অন্ধকার, "ভাল" এবং "মন্দ", ক্ষয়, স্থিতিশীলতা এবং অস্থিরতার মত বৈপরীত্যের অভিব্যক্তি হল ঐশী নবীদের ভাগ্যের একটি সংক্ষিপ্ত বিবরণ যারা সর্বদা বিরোধী এবং অস্বীকারকারীদের র‌্যাঙ্কের মুখোমুখি হয়েছেন।
সংশ্লিষ্ট খবর
নাম:
ই-মেল:
* আপনার মন্তব্য:
* :